আপনি কি শিক্ষক হবেন?

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : জুন ১৬, ২০১৯ ১২:৫৪:৫৭ পূর্বাহ্ন
0
97
views

ক্যারিয়ারঃ দেশের বেসরকারি স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় নতুন পদ্ধতিতে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া চালু হয়েছে। বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন আইন ২০০৫ অনুযায়ী শিক্ষক হিসেবে যোগ দেওয়ার জন্য নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। এখন থেকে নিবন্ধন পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের আর সংশ্নিষ্ট কলেজে আবেদন করার প্রয়োজন নেই।

PUB

আবেদন করতে হবে অনলাইনে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) বরাবর। আবেদনকারীর মধ্য থেকে শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার মেধা তালিকা থেকে নিয়োগ দেওয়া হবে। তবে প্রার্থীদের আগের মতোই অংশগ্রহণ করতে হবে নিবন্ধন পরীক্ষায়। সম্প্রতি বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) ষোড়শ নিবন্ধন পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। যোগ্যতা থাকলে আবেদন করে ফেলুন।

আবেদনের যোগ্যতা: শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে চাইলে প্রার্থীকে স্নাতক পাস হতে হবে। তবে কলেজ পর্যায়ে আবেদনের জন্য প্রার্থীকে সংশ্নিষ্ট বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রিসহ দ্বিতীয় শ্রেণির স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অথবা ওই বিষয়ে চার বছর মেয়াদি দ্বিতীয় শ্রেণির স্নাতক (সম্মান) পাস হতে হবে। শিক্ষাজীবনে যে কোনো একটি তৃতীয় বিভাগ বা সমমানের জিপিএ গ্রহণযোগ্য হবে। পরীক্ষায় অবতীর্ণ কোনো প্রার্থী আবেদন করতে পারবেন না। তবে সদ্য পাস করা প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে সংশ্নিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্তৃক প্রশংসাপত্র, নম্বরপত্র ও প্রবেশপত্র মৌখিক পরীক্ষায় দেখাতে হবে।

আবেদন প্রক্রিয়া: শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদনের জন্য www.ntrca.taletalk.com.bd ওয়েবসাইটে প্রবেশ করে নির্দেশনা মতো ছবি ও স্বাক্ষর আপলোড করে নির্ভুলভাবে ফরম পূরণের পর আবেদনকারী একটি ইউজার আইডিসহ একটি অ্যাপ্লিকেন্টস কপি। অ্যাপ্লিকেন্টস কপি ডাউনলোড ও প্রিন্ট করে সংরক্ষণ করতে হবে। ইউজার আইডি নম্বরটি ব্যবহার করে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে টেলিটকের মাধ্যমে পরীক্ষা ফি বাবদ ৩৫০ টাকা এসএমএস করে পাঠাতে হবে। প্রথমে NTRCA<স্পেস> UserID লিখে পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে, ফিরতি এসএমএসে প্রাপ্ত PINসহ NTRCA<স্পেস> Yes<স্পেস> PIN লিখে আবার ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে মোবাইল ব্যালেন্স থেকে ৩৫০ টাকা কেটে ফিরতি এসএমএসে UserID ও Password জানিয়ে দেওয়া হবে। পরবর্তী ধাপের জন্য এটি সংরক্ষণ করতে হবে, যা দিয়ে প্রিলিমিনারি পরীক্ষার প্রবেশপত্র ডাউনলোড করতে হবে।

পরীক্ষা পদ্ধতি: ত্রয়োদশ নিবন্ধন থেকে পালটে গেছে পরীক্ষার ধরন। বিসিএস পরীক্ষার আদলে হচ্ছে এই পরীক্ষা। প্রথমে ১০০ নম্বরের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা যা হবে এমসিকিউ পদ্ধতিতে, সময় ১ ঘণ্টা। বাংলা, ইংরেজি, গণিত ও সাধারণ জ্ঞান থেকে ২৫টি করে প্রশ্ন থাকবে। প্রতিটি সঠিক উত্তরের জন্য থাকবে ১ নম্বর আর প্রত্যেক ভুল উত্তরের জন্য কাটা যাবে ০.৫০ নম্বর। এই পরীক্ষায় পাস করতে হলে ৪০ নম্বর পেতে হবে। প্রিলিমিনারি পরীক্ষা হবে স্কুল ও স্কুল-২ পর্যায়ে আগামী ৩০ আগস্ট, ২০১৯ সকাল ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত। কলেজ পর্যায়ের পরীক্ষা হবে ওইদিন বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত। প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের ১০০ নম্বরের ৩ ঘণ্টাব্যাপী ঐচ্ছিক বিষয়ে লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। লিখিত পরীক্ষায় সাধারণত পাঁচটি রচনামূলক ও পাঁচটি সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর করতে হবে; প্রতিটি রচনামূলক প্রশ্নের জন্য ১৫ নম্বর এবং সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের জন্য ৫ নম্বর বরাদ্দ থাকে। প্রতিটি প্রশ্নের একটি করে বিকল্প থাকে। এই পরীক্ষা হবে স্কুল ও স্কুল-২ পর্যায়ে ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এবং কলেজ পর্যায়ে ১৬ নভেম্বর, ২০১৯ সকাল ৯টা থেকে ১২টা পর্যন্ত। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। প্রিলিমিনারি ও লিখিত পরীক্ষার সিলেবাস পাওয়া যাবে ওয়েবসাইটে। মৌখিক পরীক্ষায় তারিখ, সময় ও স্থান এসএমএসের মাধ্যমে প্রার্থীকে জানিয়ে দেওয়া হবে।

প্রয়োজনীয় কাগজপত্র: কেবল প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের নির্ধারিত তারিখের মধ্যে অনলাইনে আবেদনকৃত ফরমের (অ্যাপ্লিকেন্টস কপি) সঙ্গে সব শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, স্নাতক পর্যায়ের নম্বরপত্র ও জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্মসনদের সত্যায়িত ফটোকপিসহ প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র ডাকযোগে ঢাকা জিপিও বক্স নম্বর-১০৩, ঢাকা-১০০০ বরাবরে পাঠাতে হবে। হার্ডকপি প্রেরণের সময় খামের ওপর ষোড়শ নিবন্ধন পরীক্ষা-২০১৯-এর আবেদনপত্র লিখতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here