পাট থেকে টিনের বিকল্প জুটিন আবিষ্কার করে হৈচৈ ফেলে দিয়েছেন বাংলাদেশী বিজ্ঞানী (ভিডিওসহ)

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : মে ২৯, ২০১৯ ০৫:৫৬:৫৩ অপরাহ্ন
0

স্বাধীন নিউজ ডেস্কঃ বাংলাদেশের রপ্তানি শিল্পের সবচেয়ে বেশী অবদান রাখা পাট শিল্প যখন কালের পরিক্রমায় বিলুপ্তির পথে, ঠিক তখনই একজন বাংলাদেশী বিজ্ঞানী আধুনিকতার সাথে পাট শিল্পকে টিকিয়ে রাখার জন্য গবেষণা করে সফল হয়েছেন। তার অনুসন্ধানী গবেষণায় দীর্ঘ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে অবশেষে আলোর মুখ দেখেছে।

বিজ্ঞানী ড.মোবারক আহমেদ খান পাটের সোনালী আঁশ থেকে পরিবেশ বান্ধব ঢেউটিন আবিষ্কার করে হৈচৈ ফেলে দিয়েছেন। বিজ্ঞানী ড. মোবারক আহমেদ খান, তিনি তার জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সময় ব্যয় করেছেন এই আবিষ্কারের পিছনে। সফল আবিষ্কারের পর পাটের ইংরেজি প্রতিশব্দ জুটের সাথে মিল রেখে এর নাম দেন জুটিন।

এই জুটিন ১০০ বছর রোদ-বৃষ্টি-ঝড় মোকাবেলা করে টিকে থাকতে পারবে। সাধারণ টিনের প্রধান উপকরণ লেড এবং জিংক। পরিবেশের এই ক্ষতিকারক উপাদানগুলো পুরোটাই বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়। বাংলাদেশের পরিবেশ আর বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যায়ের কথা চিন্তা করে বিজ্ঞানী এই আবিষ্কারটিতে গুরুত্ব দেন।

কারণ এই জুটিনের ব্যবহার বাড়লে সাশ্রয় হবে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। এছাড়াও আমরা প্রতিনিয়ত যে টিন ব্যবহার করে থাকি, সেগুলো কিছু দিন পরে মরিচা ধরে যায়। কিন্তু জুটিনের ব্যবহার বাড়লে এই সমস্যা নিরসন হবে।

পাটের জট আর বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থের মাত্র ২০ মিনিটে তৈরী হয় এই জুটিন। এতে প্রয়োজন হয় না গ্যাস-বিদ্যুৎ বা অন্য কোনো জ্বালানির। এই জুটিন অন্যান্য ঢেউটিন হতে শতভাগ মজবুত।

বাণিজ্যিকভাবে এর ব্যবহার বাড়লে, কমিয়ে আনা সম্ভব পরিবেশের ক্ষতি ও আয় করা যাবে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা। এই রকম ব্যতিক্রমধর্মী আবিষ্কারে পাটের সুদিন ফিরে আসবে শীঘ্রই।

দেশ একদিন এগিয়ে যাবে উন্নতির চরম শিখরে। উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে বিশ্বদরবারে পরিচিতি পাবে আমাদের এই বাংলাদেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here