সংবাদপত্র ও অনলাইনে দুই শ্রেণির সংবাদ চর্চা মানুষকে নানা ধরনের প্রশ্নের সন্মুখিন করছে। বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার মাধ্যমে যেমন মানুষের উপকার করা যায়। তেমনি হলুদ সাংবাদিকতার মাধ্যমে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বিভ্রান্ত এবং ক্ষতি করা যায়। উপকার করা যেমন কঠিন কাজ ক্ষতি করা আবার খুবই সহজ কাজ। সংবাদপত্র ও অনলাইন পোর্টালে পরিবেশিত বস্তুনিষ্ঠ অর্থাৎ সত্য সংবাদ পড়ে একজন ব্যক্তি নিজেকে পরিবেশের সাথে খাপ খাইয়ে নিতে পারে। সংবাদপত্র ও অনলাইন পত্রিকাগুলি অর্থনৈতিক, সামাজিক, রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় ক্ষেত্রে মানুষকে গাইড করে। এইভাবে একজন ব্যক্তি পরিবর্তিত সময়ের সাথে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখার ব্যবস্থা করে।

সংবাদ পাঠ মানুষের ব্যক্তিগত ও সম্মিলিত জীবনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে এবং অগণিত সুবিধা ও উপকারের উৎস হয়ে সমাজ সংস্কারে হাতিয়ার হয়। এই সাংবাদিকতার চর্চা অর্থাৎ মানুষের উপকার হয় এমন সংবাদিকতা খুবই কষ্ঠসাধ্য ও দূরহ। পাশাপাশি একটি মিথ্যা সংবাদ অর্থনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ,রাজনৈতিক এবং ধর্মীয় ক্ষেত্রে মারাত্বক কুপ্রভাব সৃষ্টি করে যা সমাজকে বিনষ্ট করে ধ্বংস করে। এটি করা খুবই সজ।

বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকদের পরিবেশিত তথ্য মানুষের কাজকে সহজ করে তোলে কারণ এসব তথ্যের সস্তায় এবং সহজ উৎস। কেউ যদি রাজনীতির শিক্ষার্থীরা সংবাদের মাধ্যমে জানেন যে সরকারের নতুন নীতিটি কী? সরকার কীভাবে জনগণকে সহায়তা করছে বা সরকারের আরও কী করা দরকার? এটিতে বিদেশী সংবাদ, খেলাধুলা, বিনোদন এবং সাহিত্যের সাথে সম্পর্কিত অনেকগুলি সংবাদ, কলাম এবং চিঠিগুলি রয়েছে, যার অধ্যয়ণ তাকে অবহিত করে রাখে। মুক্ত ও চিঠিপত্র লেখার জন্য, প্রবন্ধ রচনার জন্য বা কোনও ধরণের লেখার জন্য পড়ে প্রশিক্ষিত হয়। অনলাইন ও সংবাদপত্রে সাহিত্য পাতা বাংলা ভাষার প্রচার ও প্রসার এবং প্রসার এবং প্রকাশনায় মূল ভূমিকা পালন করে।

অপরদিকে মিথ্য ও বিভ্রান্তমূলক প্রকাশিত সংবাদ সামাজিক বিশৃঙ্খলা, রাষ্ট্র ও জনগণের ক্ষতি মারাত্বক ক্ষতি সাধন করে। এগুলি সংবাদ পরিবেশন খুবই সহজ কাজ । মিথ্যা ও অসত্য ও বিভ্রান্তমূলক সংবাদ প্রকাশকারীরা দায়বদ্ধতা এবং দায়িত্বশীল সাংবাদিকতাকে প্রশ্নবিদ্ধ এবং গোপনীয়তার নিয়ম লঙ্ঘন করে। ক্ষতিকর ও মিথ্যা সংবাদ মানুষের মনের উদ্বেগ আর যন্ত্রণা বাড়িয়ে দেয় ও সংবেদনহীন করে। আমাদের জীবনে সংবাদপত্রের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই হুলদ সাংবাদিকতা পরিহার করে বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার চর্চায় আরও যত্বশীল হতে হবে।

ঐ দিন সত্য সংবাদ মিথ্যা সংবাদ নৈতিকতার বিচারে ভাল না মন্দ, তানিয়ে তর্ক চলতে। তার পরেও চূড়ান্তের পক্ষে। মিথ্যা ও অসত্য সংবাদ মানুষের সাময়িক সুখের প্রলোভন বহু ক্ষেত্রেই ভবিষ্যতের বিপদের আশঙ্কাকে ঢেকে দেয়। আবার সত্য সংবাদ মানুষকে বিভিন্ন পথ থেকে সঠিক পথ বেছে নিতে এবং এটি অনুসরণ করতে সহায়তা করে । সাংবাদিকতা মহান পেশা হলেও এখানে অর্থনৈতিক দৈন্যতা রয়েছে। সচ্ছলভাবে থাকা না গেলেও এটি একটি মহান পেশা ছিল। এখন সাংবাদিকদের সাংঘাতিক বলা হয়। কেন এই বিকৃত? মানুষের ক্ষতি করা সহজ, উপকার করা খুবই কঠিন কাজ।

সভাপতি – বাংলাদেশ অনলাইন সংবাদপত্র সম্পাদক পরিষদ (বনেক) কেন্দ্রীয় পরিষদ।

Leave a comment

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।