বাবা-মাকে হাত-পা ও মুখ বেঁ’ধে হ’’ত্যার মূল হোতা ছেলে, তিনজন গ্রে’ফতার

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : নভেম্বর 12, 2021 12:05:18 অপরাহ্ন
0
17
views

সারাদেশ: দিনাজপুর নবাবগঞ্জের জমির দলিলের জন্য বাবা-মাকে হাত-পা বাঁ’ধা হ’’ত্যার সাতদিন পর হ’’ত্যাকারী ছেলেসহ তিনজনকে গ্রে’ফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুর ২টার দিকে জে’লা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) শচীন চাকমা।

গ্রে’ফতারকৃতরা হলো- নি’হত হাফিজুর রহমানের বড় ছেলে আব্দুল মতিন মিঠু, ঐ উপজে’লার ধরঞ্জী গ্রামের রাজা মিয়ার ছেলে রাজন মিয়া, একই গ্রামের এনামুল হকের ছেলে উজ্জ্বল হোসেন। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শচীন চাকমা বলেন, ৪ নভেম্বর রাতে নবাবগঞ্জ উপজে’লার ভাদুরিয়া ইউনিয়নের নির্শা কাজলদিঘী গ্রামের হাফিজুর রহমান ও তার স্ত্রী ফেন্সিয়ারা বেগমকে নিজ বাড়িতে হাত-পা বেঁ’ধে হ’’ত্যা করা হয়। ডাকাতির নাটক সাজিয়ে তাদের হ’’ত্যা করেন ছেলে মিঠু। ত’দন্তে নেমে সব তথ্য-আলামত ও আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে মিঠুসহ জ’ড়িত তিনজনকে গ্রে’ফতার করা হয়।

তিনি আরো বলেন, প্রাথমিক জি’জ্ঞাসাবাদে জানা গেছে- বাবা হাফিজুর রহমানের জমির দলিল চু’রি করতে আপন ফুপাতো ভাই সুলতান মাহমুদকে দায়িত্ব দেয় আব্দুল মতিন মিঠু। এর বিনিময়ে তাকে টাকা ও স্বর্ণালংকার দেওয়ার প্রলোভন দেখায় সে। পরিকল্পনা অনুযায়ী সুলতান মাহমুদ তার সহযোগীদের নিয়ে একাধিকবার চেষ্টা করেও দলিল চু’রি করতে পারেনি। ঘটনার রাতে তারা ডাকাতি করতে ঘরে ঢুকে হাফিজুর রহমান ও ফেন্সিয়ারা বেগমকে মুখে টেপ পেঁ’চিয়ে শ্বা’সরো’ধে হ’’ত্যা করে এবং জমির দলিল, টকা-স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, জে’লা পুলিশের একাধিক টিম বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দিনাজপুরের বিভিন্ন এলাকায় অ’ভিযান চা’লিয়ে হ’’ত্যাকাণ্ডে জ’ড়িত তিনজনকে গ্রে’ফতার করেছে। অধিকতর জি’জ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের আ’দালতে হাজির করে রি’মান্ড আবেদন করা হবে। সংবাদ সম্মেলনে নবাবগঞ্জ থানার ওসি ফেরদৌস, পরিদর্শক (ত’দন্ত) তাওহীদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।