ধষ”র্ণের পর স্কুলছাত্রীর ভি”ডিও ভাইরাল, কি’শোর-কি’শোরী গ্রে’ফতার

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : নভেম্বর 6, 2021 03:47:41 অপরাহ্ন
0
20
views

বরগুনার আমতলী উপজে’লায় নবম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রীকে ধ”ণের পর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার অ’ভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় অ’ভিযান চা’লিয়ে অ’ভিযুক্ত কি’শোর ও কি’শোরীকে গ্রে’ফতার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে আমতলী থানায় ওই স্কুলছাত্রর মা বা’দী হয়ে সোহেল নামে এক কি’শোরকে প্রধান করে তিনজনের নামে ধ”ণ ও প’র্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে মা’মলা দা’য়ের করেন।

রাতেই আমতলী উপজে’লার পূর্ব কৃষ্ণনগর গ্রাম থেকে প্রধান আ’সামিসহ দুজনকে গ্রে’ফতার করা হয়। শনিবার তাদের আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালতে সোপর্দ করা হয়েছে। আ’দালতের বিচারক মো. সাকিব হোসেন তাদের জে’লহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। গ্রে’ফতার দুজন হলো- মো. সোহেল (১৭) ও মারুফা আক্তার (১৪)। তারা একই গ্রামের বাসিন্দা। জানা গেছে, উপজে’লায় নবম শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী প্রতিবেশী শামীম আকনের কাছে দর্জি প্রশিক্ষণ নিতে যায়। ওই সুযোগে শামীমের খালাতো ভাই শহীদ ও এসএসসি পরীক্ষার্থী সোহেল (১৭) ওই স্কুলছাত্রীকে জো’রপূর্বক ধ”ণ করে।

পরে ওই স্কুলছাত্রীর ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে রাখে সোহেল। ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার হু’মকি দিয়ে সোহেল ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধ”ণ করে। পরে ওই স্কুলছাত্রী ব’খাটে সোহেলের নি’র্যাতন থেকে রক্ষাপেতে তার পরিবারের কাছে অ’ভিযোগ দেয়। এতে ক্ষি’প্ত হয় সোহেল। কিছুদিন আগে সোহেল ওই স্কুলছাত্রীর ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে আমতলী থানায় ভু’ক্তভোগী ওই স্কুলছাত্রীর মা বা’দী হয়ে সোহেলকে প্রধান করে তিনজনের নামে ধ”ণ ও প’র্নোগ্রাফি আইনে মা’মলা দা’য়ের করেন।

পুলিশ ওই রাতেই অ’ভিযান চা’লিয়ে ব’খাটে সোহেল ও তার খালাতো বোনকে গ্রে’ফতার করে। শনিবার তাদের আমতলী সিনিয়র জুডিসিয়ার ম্যা’জিস্ট্রেট আ’দালতে সোপর্দ করা হয়। আ’দালতের বিচারক মো. সাকিব হোসেন তাদের জে’লহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এসময় ওই স্কুলছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়। ভু’ক্তভোগী ওই স্কুলছাত্রীর মা বলেন, আমার মেয়েকে সোহেল জো’রপূর্বক ধ”ণ করে মোবাইলে ভিডিও তুলে রাখে। ওই ভিডিও দেখিয়ে আমার মেয়েকে একাধিকবার ধ”ণ করেছে। পরে ওই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দেয়। আমি এ ঘটনার বিচার চাই।

আমতলী থানার এসআই নাসরিন বলেন, স্কুলছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আমতলী থানার ওসি একেএম মিজানুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় প্রধান আ’সামি সোহেলসহ দুজনকে গ্রে’ফতার করে আ’দালতে পাঠানো হয়েছে। সুত্রঃ যুগান্তর