ত’রুণীকে ৩ দিন, স্কুলছাত্রীকে ৫ দিন আ’টকে রেখে ধ”ণ! অ’ভিযুক্ত গ্রে’প্তার

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : নভেম্বর 2, 2021 05:31:33 অপরাহ্ন
0
14
views

নেত্রকোনার ম’দনের পল্লীতে এক স্কুলছাত্রী (১৪) ও আরেক ত’রুণীকে (২৬) ধ”ণের অ’ভিযোগে সুমন মিয়া (৩৫) নামের যুবকে আ’টক করেছে ম’দন থানার পুলিশ। মঙ্গলবার (০২ নভেম্বর) সকালে নিজ বাড়ি থেকে সুমনকে গ্রে’প্তার করা হয়। তিনি উপজে’লার তিয়শ্রী ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য ও বীর মুক্তিযো’দ্ধা সাহের উদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনার মা’মলা প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ ভু’ক্তভোগী পরিবারের সদস্যরা জানায়, দুই স’ন্তানের জনক সুমন মিয়া ১৭ অক্টোবর উপজে’লার ফতেপুর ইউনিয়নের রুদ্রশ্রী এলাকার এক ত’রুণীকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে বাড়িতে নিয়ে আসেন।

তাকে তিন দিন আ’টকে রেখে ধ”ণ করে ২১ অক্টোবর বাড়ি পাঠিয়ে দেন। ওই রাতেই শ্রীধরপুর গ্রাম থেকে আরেক স্কুলছাত্রীকে অ’পহরণ করে নিয়ে আসেন সুমন। ওই ছাত্রীর বাবা ২২ অক্টোবর থানায় লিখিত অ’ভিযোগ দা’য়ের করে। ২৫ অক্টোবর অ’ভিযুক্ত সুমন মিয়ার কাছ থেকে ওই স্কুলছাত্রীকে উ’দ্ধার করে পরিবারের জিম্মায় দেয় এলাকার মাতুব্বররা। অন্যদিকে, রুদ্রশ্রী এলাকার ওই ত’রুণী ২৬ অক্টোবর সুমন মিয়ার বি’রুদ্ধে ম’দন থানায় একটি লিখিত অ’ভিযোগ দা’য়ের করে।

পৃথক দুটি অ’ভিযোগে থানায় কোনো মা’মলা না হওয়ায় গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে এলাকায় সমালোচনার সৃষ্টি হয়। পরে পুলিশ মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) সকালে সুমনকে আ’টক করে থানায় নিয়ে আসে। সংল্লিষ্ট ইউপি সদস্য সোহেল চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, অ’পহরণ করায় স্কুল ছাত্রীর বাবা সুমন মিয়ার বি’রুদ্ধে থানায় লিখিত অ’ভিযোগ করেন। স্থানীয় মাতুব্বররা সুমন মিয়ার কাছ থেকে পাঁচ দিন পর স্কুলছাত্রীকে উ’দ্ধার করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেন।

এ ছাড়া বিয়ের আশ্বাস দিয়ে আরেক নারীকে বাড়িতে নিয়ে এসেছিল। সেই নারীও তার বি’রুদ্ধে থানায় লিখিত অ’ভিযোগ করেছে। ম’দন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্ম’দ ফেরদৌস আলম বলেন, মঙ্গলবার সকালে সুমন মিয়াকে আ’টক করা হয়েছে। এ ঘটনার মা’মলার প্রস্তুতি চলছে। সুত্রঃ kalerkantho