শেখ সেলিম’দের হাত এত লম্বা, ওনারা ধরাছোঁয়ার বাইরে: কাদের মির্জা

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : অক্টোবর 3, 2021 09:56:49 পূর্বাহ্ন
0
19
views

রাজনীতি: বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এখন একটা কথা প্রচার আছে, বাংলাদেশে অপরাজনীতির হোতাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন শেখ সেলিম সাহেব। শেখ সেলিম শেখ পরিবারের লোক। আমাদের দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য। এক সময় মন্ত্রী ছিলেন। কী কারণে মন্ত্রীত্ব হা’রিয়েছে জানি না?

সারা বাংলাদেশে প্রচার আছে, উনি ক্যা’সিনো ব্যবসার সাথে জ’ড়িত। আজকে ক্যা’সিনো ব্যবসার সাথে জ’ড়িত থেকে অনেকে গ্রে’প্তার হয়েছে। শেখ সেলিম’দের হাত এত লম্বা, ওনারা আজকে ধরাছোঁয়ার বাইরে।’ শনিবার রাত ৮টায় নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে তিনি এসব কথা বলেন। কাদের মির্জা শেখ সেলিমের প্রতি বিনীত আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘নেতৃত্বে আছেন, নেতৃত্ব সুলভ কর্মকাণ্ড করবেন, না হলে জনগণ ঘৃণা ভরে আপনাদের প্রত্যাখান করবে।

কোন সত্য গো’পন থাকেনা। কি করেন সব মানুষ জানে। আপনারা বঙ্গবন্ধু পরিবারের কলঙ্ক। আপনারা শেখ হাসিনার আত্মীয় হয়ে শেখ হাসিনাকে কলঙ্কিত করছেন।‘ কাদের মির্জা শেখ সেলিমকে সম্পর্কে বলেন, ‘উনি গোপালগঞ্জ থেকে ভোট করেন। সেখানে ৯৫ ভাগ মানুষ আওয়ামী লীগ করে। সেখান থেকে নির্বাচিত হন। বিশেষ করে নোয়াখালী এসে ভোটে দাঁড়ান দেখবেন জামানত পাবেন না।’

তিনি আরও বলেন, ‘সেই শেখ সেলিমের সাথে নাকি দেখা করেছে নোয়াখালীর অপরাজনীতির হোতা নোয়াখালী-৪ আসনের সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী। প’ঙ্গুত্বের অভিনয় করে শেখ সেলিমের কাছে গিয়েছেন। শেখ সেলিম নাকি ডিআইজি সাহেবকে বলে দিয়েছেন আমার বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য। কিন্তু আপনি কোন কিছু যাচাই না করে কেন আমার বি’রুদ্ধে অবস্থান নিলেন। এ ছেলেকে সেখানে আশ্রয় দিয়েছেন, তার জন্য ওকালতি করছেন?’

ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশে কাদের মির্জা বলেন, ‘আপনাদের মাথায় ঢুকেছে জো’র করে ভোট নিয়ে আপনারা আবার পরবর্তী স’রকার গঠন করবেন। এটা কি রাজনীতি? ভোট চু’রি করে বঙ্গবন্ধু নেতা হয়েছেন? ভোট চু’রি করে বঙ্গবন্ধু কি প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন? আজকে আপনাদের মাথায় ঢুকেছে ভোট চু’রি করবেন। এলাকার সঙ্গে সম্পর্কের দরকার নাই। ওবায়দুল কাদের সাহেব আজকে কয় বছর এখানে আসেন না? এলাকার খোঁজ নেওয়ার প্রয়োজন নাই! অন্য এমপিদের অবস্থাও একই। দুই-চারজন এলাকায় আসেন টিআর–কাবিখার টাকা, রাস্তার কাজের ভাগ নেওয়ার জন্য। এভাবে চলতে দেওয়া যায়? বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীনতা দিয়ে গেছেন। জননেত্রী শেখ হাসিনা যে উন্নয়ন করেছেন, তা ৫০ বছরেও কেউ করতে পারেনি। আর আপনারা তার সকল অর্জন ধ্বং’স করে দিচ্ছেন।’

কাদের মির্জা নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) শহিদুল ইসলামকে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‌‘আপনি ছিলেন পুলিশ হেডকোয়াটারে, কী জন্য নোয়াখালী এসেছেন? আপনার আগের এসপি তো যাওয়ার জন্য দরজা খুঁজে পেয়েছেন, আপনি পা’লিয়ে যাওয়ার জন্য দরজাও খুঁজে পাবেন না। আপনাকে অনতিবিলম্বে নোয়াখালী ছাড়তে হবে। না হয় আপনার বি’রুদ্ধে কোম্পানিগঞ্জের লোকজন ফুসে উঠবে।’

তিনি আরও বলেন, ‌‘আমাকে ভ’য় দেখানোর চেষ্টা করবেন না। আমি বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আদর্শের সৈনিক। আমরা মৃ’ত্যুকে ভ’য় করিনা। ভ’য় ওবায়দুল কাদেরকে দেখান। উনি ভ’য়ে এলাকায় আসেননা। কারণ নির্বাচনের আগে বলেছিলেন ঘরে ঘরে চাকরি দেবেন, গ্যাস দেবেন। কিন্তু কিছুই দেননি। তার ঘনিষ্ঠ লোকজন ব্যস্ত টাকা আর নারী নিয়ে। তাদের প্রত্যেকের বিদেশে একাধিক বাড়ি ও ঢাকায় একাধিক ফ্ল্যাট বাড়ি রয়েছে।’