হেফাজতকে ‘জ’ঙ্গি সংগঠন’ ঘোষণা করে নি’ষিদ্ধের দাবি ৫৫১ আলেমের

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : এপ্রিল 24, 2021 03:21:22 অপরাহ্ন
0
14
views

রাষ্ট্রবি’রোধী উসকানি ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ বক্তব্য এবং সহিং’সতার মাধ্যমে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির দায়ে হেফাজতে ইসলামকে ‘উ’গ্র জ’ঙ্গি সংগঠন’ ঘোষণা দিয়ে এর কার্যক্রম নি’ষিদ্ধের দাবি জানিয়েছে সুন্নীয়তপন্থী সংগঠন ‘আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাআত বাংলাদেশ’-এর শীর্ষ ৫৫১ আলেম। তাদের মতে, রাষ্ট্রক্ষমতা দ’খলের উচ্চাভিলাস থেকে দেশজুড়ে ধ্বং’সাত্মক কর্মকাণ্ড এবং মানবিক বিয়ে বা চুক্তিভিত্তিক বিয়ের নামে জঘন্য অ’পরাধ ঢাকতে হেফাজত ইসলামের মৌলিক বিধিবিধানের ও’পর হস্তক্ষেপ করছে। তাদের এমন কর্মকাণ্ডে দেশের আলেম সমাজ লজ্জিত।

শনিবার (২৪ এপ্রিল) সকালে আহলে সুন্নাতে ওয়াল জামাআতের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এসব কথা বলা হয়। বিবৃতিতে আলেমরা বলেন, সামাজিক অনাচারে যুক্ত হওয়া, রাষ্ট্রীয় সম্পদ ধ্বং’স করা, জানমালের ক্ষ’তিসাধন করা ইসলাম সমর্থন করে না। এ ধরনের ধ্বং’সাত্মক কর্মকাণ্ডে জ’ড়িত ব্যক্তি বা সংগঠনের কাছে দেশ-মিল্লাত-মাযহাব কখনও নিরাপদ নয়। ২০১০ সালে হেফাজতের জন্মের পর থেকেই তারা সহিং’সতা ছড়িয়ে দিচ্ছে।

কখনও ইসলাম প্রচারক আল্লাহর ওলিদের মাজার-খানকাহ শরীফ ভে’ঙে গুঁ’ড়িয়ে দেওয়ার হু’মকি দিচ্ছে। আবার কখনও দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ সুফিবাদি জনতাকে প্রকাশ্যে হা’মলার হু’মকি দিয়ে তারা এ দেশে উ’গ্র জ’ঙ্গিবাদ প্রতিষ্ঠা করতে চায়। হেফাজতের সাথে ইসলামের মৌলিক বিশ্বাসের দূরতম সম্পর্কও নেই উল্লেখ করে আহলে সুন্নাতের আলেমরা বলেন, ‘ইসলাম হেফাজতের নামে উ’গ্র হেফাজতিদের রাষ্ট্রক্ষমতা দ’খলের উচ্চাভিলাস ও ধ্বং’সাত্মক কর্মকাণ্ডে গোটা আলেম সমাজ আজ লজ্জিত হয়েছে’।

হেফাজত নেতা মামুনুল হকের বি’তর্কি’ত বিয়ের প্রসঙ্গ টেনে সুন্নি আলেমরা বিবৃতিতে বলেন, ইসলামে নারী-পুরুষের বন্ধনের বৈধ পন্থা হলো বিয়ে। আল্লাহ বিয়েকে হালাল করেছেন, বিপরীতে বিবাহবহির্ভূত সব অ’বৈধ মেলামেশা নি’ষিদ্ধ করেছেন। চার মাযহাবের ইমামগণসহ সমস্ত আইম্মায়ে কিরামের ঐক্যমত হলো-নিকাহের বিপরীতে চুক্তিভিত্তিক সাময়িক যৌ’ন সম্পর্ক স্থাপন করা সম্পূর্ণ হারাম ও ইসলামের দৃষ্টিতে তা শা’স্তিমূলক অ’পরাধ।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘বর্তমানে ইসলাম রক্ষার কথা বলে হেফাজতের কিছু চিহ্নিত দায়িত্বশীল নেতা হাজার বছর ধরে প্রচলিত ইসলামের মৌলিক বিধানের ও’পর হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে। শরীয়তের শাশ্বত বিধান পাল্টে দিয়ে চুক্তিভিত্তিক সাময়িক বিয়ের প্রবর্তন করার দুঃসাহস দেখাচ্ছে; যা সমাজে অবাধ অনাচার, যৌ’নাচার ও যুবসমাজকে বি”কৃত পথে চলতে উৎসাহ দেবে। ইসলাম সম্পর্কে ভু’ল বার্তা পৌঁছাবে। অন্যদিকে ইসলামী সামাজিক রীতিনীতি ও পরিবার প্রথা ভে’ঙে সামাজিক অশান্তি সৃষ্টির পথ দেখাবে’।

আলেমরা আরো বলেন, ‘হেফাজতের তথাকথিত দায়িত্বশীলরা মূলত নিজের কৃত জঘন্য অ’পরাধ ঢাকতেই ইসলামকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করার অ’পচেষ্টা চালাচ্ছে। কখনও মানবিক বিয়ে বা কখনও চুক্তিভিত্তিক বিয়ের কথা বলে নিজেকে রক্ষা করতে চাইলেও সবকিছু বিবেচনা ও পর্যবেক্ষণ করে শরীয়তের ফয়সালা হল- ইসলামে চুক্তিভিত্তিক বিয়ে হারাম। সুতরাং যে বা যারা এ ধরনের কর্মকাণ্ডে জ’ড়িত থাকবে, বিবাহিত হলে প্রমাণসাপেক্ষে তাদেরকে পাথর নি’ক্ষেপ করে মৃ’ত্যুদ’ণ্ড কার্যকর করার বি’ষয়ে ইসলামে ফয়সালা দেয়া হয়েছে।’

বিবৃতিতে তারা স’রকারের উদ্দেশ্যে বলেন, হেফাজতকে উ’গ্র জ’ঙ্গি সংগঠন ঘোষণা করে নি’ষিদ্ধ করুন। দেশে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখু’ন। দেশে প্রচলিত শিক্ষানীতি, আইন এবং নীতিমালা বি’রোধী কওমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-বোর্ডগুলোর উপর পরিপূর্ণ স’রকারি নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করুন।এছাড়াও দেশবাসীকে আলেম লেবাসধারী এই জ’ঙ্গিগোষ্ঠীর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করারও আহ্বান জানিয়েছেন আহলে সুন্নাতের নেতারা। উল্লেখ্য, স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে গত ২৬ মার্চ ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের হাটহাজারী, ব্রাহ্মণবাড়িয়াসহ দেশের বিভিন্নস্থানে পুলিশের সঙ্গে হেফাজতের নেতাকর্মীদের সং’ঘর্ষ হয়।

এতে অন্তত ১৭ জনের মৃ’ত্যু হয়। দেশের বিভিন্নস্থানে সহিং’সতায় হ’তাহত, স’রকারি-বেস’রকারি বিভিন্ন স্থাপনায় তা’ণ্ডবের পর হেফাজতের বি’রুদ্ধে ক’ঠোর অবস্থানে যায় স’রকার। এরই মধ্যে হেফাজতের যুগ্ম মহাস’চিব মামুনুল হকসহ শীর্ষ নেতাদের অনেকেই গ্রে’প্তার হয়েছেন। সুত্রঃ কালের কণ্ঠ