গাছের আম নিয়ে ২ গ্রামের সং’ঘর্ষ, নৃ’শংস হ’’ত্যা

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : এপ্রিল 17, 2021 09:12:26 অপরাহ্ন
0
20
views

সারাদেশ: ছোট বাচ্চাদের আম পাড়াকে কেন্দ্র করে কি’শোরগঞ্জের কুলিয়ারচর উপজে’লার ছয়সূতী ইউনিয়নের মধ্য লালপুর ও ভৈরব উপজে’লার মিরারচর উত্তর পাড়া ওমরা বাড়ি এই দুই গ্রামের লোকজনের মধ্যে সং’ঘর্ষ, হা’মলা, বাড়িঘর ভা’ঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় লিটন মিয়া নামে এক বিভাটেক চালককে নৃ’শংসভাবে হ’’ত্যা করা হয়েছে।

এছাড়া নি’হতের বড় ছেলে মো. রাকিব (২০) সহ কমপক্ষে ১০ জন আ’হত এবং উভ’য়পক্ষের অন্তত ২০টি বাড়িঘরে ভা’ঙচুর ও লু’টপাটের ঘটনা ঘটেছে। আজ শনিবার (১৭ এপ্রিল) ফজরের নামাজের পর ভৈরব ও কুলিয়ারচর উপজে’লার সীমান্তবর্তী এলাকা লালপুর ও মিরারচর ওমরা বাড়ির লোকজন দেশীয় অ’স্ত্র নিয়ে এ হ’’ত্যা, লু’টপাট ও সং’ঘর্ষের ঘটনা ঘটায়।

নি’হতের ছেলে মো. রাকিব জানান, আগের দিন শুক্রবার (১৬ এপ্রিল) পার্শ্ববর্তী তার নানীর বাড়িতে মো. শামীম মিয়ার সাত বছরের ছেলে সাব্বির গাছ থেকে আম পাড়ার জন্য আম গাছে ঢিল ছুঁড়লে, সেই ঢিল গিয়ে মেরছি মিয়ার নাতি রামিম (৫) এর কপালে লাগে। এতে মেরছি মিয়ার বাড়ির লোকজন ক্ষু’ব্ধ হয়ে শামীম মিয়াকে মা’রধরসহ বাড়িঘরে হা’মলা ও ভা’ঙচুর করে এবং খু’ন জ’খমের হু’মকি দেয়।

এ অবস্থায় মেরছি মিয়াদের ভ’য়ে রাতে শামীম মিয়া ও তার ভাই বাড়ি ছেড়ে পার্শ্ববর্তী মো. লিটন মিয়ার বাড়িতে আশ্রয় নেয়। পরে মেরছি মিয়া ও তার দলবল রাতে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়ে শনিবার (১৭ এপ্রিল) ফজর নামাজের পর অতর্কিতে লিটন মিয়ার বাড়িতে হা’মলা চা’লায়। এ সময় বিভাটেক চালক লিটন মিয়া তার বিভাটেকটি হা’মলাকারীদের ভা’ঙচুর থেকে রক্ষা করতে একটি নিরাপদ স্থানে নিয়ে রেখে বাড়িতে ফিরে আসার পথে হা’মলাকারীরা তার পথরোধ করে মা’রধর শুরু করে। এসময় লিটন মিয়া দৌড়ে পালাতে গেলে শের আলীর বাড়ির আঙিনায় গিয়ে মাটিতে পড়ে যায়। প্রা’ণে বাঁচার জন্য হা’মলাকারীদের কাছে লিটন মিয়া প্রা’ণ ভিক্ষা চায়।

কিন্তু তাতেও মন গলেনি হা’মলাকারীদের। তারা ধা’রালো অ’স্ত্র দিয়ে কু’পিয়ে ঘটনাস্থলেই লিটন মিয়াকে নি’র্মমভাবে হ’’ত্যা করে। মৃ’ত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর হা’মলাকারীরা বাড়িঘর ছেড়ে পা’লিয়ে যায়। খবর পেয়ে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লা’শ উ’দ্ধার করে। বিকালে এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে এবং পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

খবর পেয়ে ভৈরব সার্কেলের এ.এস.পি রেজওয়ান দীপু, কুলিয়ারচর উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তা রুবাইয়াৎ ফেরদৌসী, ভৈরব উপজে’লা নির্বাহী কর্মকর্তা লুবনা ফারজানা, কুলিয়ারচর থানার অফিসার ই’নচার্জ (ওসি) একেএম সুলতান মাহমুদ এবং ভৈরব থানার অফিসার ই’নচার্জ (ওসি) মো. শাহিন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ বি’ষয়ে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ই’নচার্জ (ওসি) একেএম সুলতান মাহমুদ বলেন, নি’হতের ম’রদেহ উ’দ্ধার করে ম’য়নাত’দন্তের জন্য কি’শোরগঞ্জ ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতাল ম’র্গে পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় আইনী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।