মে”য়ের ব”কুনিতে রা”স্তায় শতব”র্ষী বৃ”দ্ধ, বা”সায় ফে”রাল পু”লিশ

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : এপ্রিল 9, 2021 03:18:23 অপরাহ্ন
0
21
views

চট্টগ্রাম নগরের বায়েজিদ বোস্তামী থানার আরেফিন নগর এলাকায় একটি মস”জিদের সামনে রাস্তায় কাতরাচ্ছিলেন শতব”র্ষী এক ব্যক্তি। বয়সের ভারে ন্যুব্জ ওই বৃ”দ্ধ শা”রীরিক দুর্ব”লতার কারণে কথাও বলতে পারছিলেন না। বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বেলা ১২টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত তাকে একই জায়গায় পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা ফোন করেন জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯ নম্বরে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন বায়েজিদ বো”স্তামী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রিদু”য়ানুল হকের নেতৃত্বে একদল পুলিশ।

ওই ব্যক্তিকে উ”দ্ধার করে নাম-ঠিকানা জানার চেষ্টা করেন। অনেকক্ষণ চেষ্টার পর চাক্তাই নয়া মস”জিদ এলাকার কথা বলেন তিনি। এসআই রিদুয়ান বলেন, ‘বৃ”দ্ধের মুখে একটি এলাকার নাম শুনে আমরা তাকে নিয়ে বাকলিয়া থানা পুলিশের সহায়তায় ওই ঠিকানায় যাই। সেখানে নয়া মস”জিদের সামনে লোকজনকে তার বি’ষয়ে জি”জ্ঞাসাবাদ করি। একপর্যায়ে স্থানীয় লোকজনের সহযো”গিতায় আমরা তার মেয়ে রাবেয়ার ঠিকানা পেয়ে যাই। এরপর তাকে কোলে নিয়ে কো”নোমতে আমরা তার মেয়ের বাসায় যাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘মেয়ের ঠিকানায় গিয়ে আমরা বেশ অবাক হই। কোথায় বাবাকে পেয়ে খুশি হবেন, উল্টো আমরা কেন তাকে উ”দ্ধার করে নিয়ে গেছি সেজন্য আমাদের ও’পর রা”গ ঝা”ড়তে লাগ”লেন। পরে স্থানীয় সবার অনুরোধে বৃ”দ্ধকে বুঝে নেন তার মেয়ে এবং উপস্থিত সবাই বৃ”দ্ধকে দেখে রাখতে অনুরোধ করেন।’

স্থানীয়দের বরাতে পুলিশ কর্মকর্তা রিদুয়ান বলেন, ‘১১৫ বছর বয়”সী ওই বৃ”দ্ধের নাম গোলাম রহমান। তিনি বসবাস করতেন নগরের চাক্তাই নয়া মসজিদ এলাকার মে”য়ের বাসায়। একমাত্র ছেলে তাকে অনেক আগেই ছেড়ে চলে যায়। কয়েকবছর ধরে ভিক্ষা করে তিনি মা”জারে এবং বিভিন্ন জায়গায় দিনাতিপাত করতেন। তবে গত এক বছর আগে থেকে বয়সের কারণে তিনি আর ভিক্ষা করতে পারছেন না। সেজন্য উঠেছেন নিজের মেয়ের বাসায়।’

তিনি আরও বলেন, ‘মেয়ের বাসায় অবহেলা ও বকাবকিতে অ’তিষ্ঠ হয়ে গতকাল (বৃহস্পতিবার) সকালে বেরিয়ে পড়েন ভিক্ষা করতে। কিছুক্ষণ মানুষের কাছ থেকে ভিক্ষা করে সেই টাকায় বায়েজিদ আরেফিন নগর এলাকার এসে সড়কের পাশে ঘুমিয়ে পড়েন। দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ঘুমাতে দেখে এলাকার লোকজন তাকে পাশের একটি মসজিদে এনে জরুরি সেবা ৯৯৯-এ কল দেয়। পরে আমরা তাকে উ’দ্ধার করে বাসায় পৌঁছে দেই।’

এসআই রিদুয়ান বলেন, ‘বৃ’দ্ধ গোলাম রহমানকে উ’দ্ধার করে তার বাসায় গেলে মেয়ের আচরণ দেখে আমরা বেশ অবাক হই। খুব সম্ভবত এই কারণেই তিনি বাসায় ফিরতে চাননি। পরে উপস্থিত সবার অনুরোধে তার মেয়ে শান্ত হয় এবং ভবি’ষ্যতে আর গা’লিগা’লাজ না করতে সবাই তাকে অনুরোধ করেন।

উ’দ্ধার প্রক্রিয়ার এ কাজে আমাকে সার্বিক দিকনির্দেশনা ও সহযোগিতা করেছেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ বায়েজিদ জোনের সিনিয়র সহকারী কমিশনার শাহ আলম ও বায়েজিদ বোস্তামী থানার ওসি প্রিটন স’রকার।’ সুত্রঃ জাগো নিউজ