ঘরে স’ন্তানসম্ভবা স্ত্রী, রিকশা পু’লিশের রেকারে, নি’জের পে’ টে নি’জেই চা’ কু মা’০ রলেন চালক

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : ফেব্রুয়ারী 21, 2021 06:23:44 অপরাহ্ন
0
41
views

অ’ স্ত্রোপ’চারের অপেক্ষায় ঢাকা মে’ডিকেল কলেজ হা’সপাতা’লের বিছানায় সোমবার বিকেলে কা’ত’রাচ্ছিলেন জুম্মন মিয়া। বয়স ২২–২৩ বছর হবে। পরনে ধুলোমলিন কালো টি-শার্ট। পেটে ব্যান্ডেজ। কী হয়েছিল, জানতে চাইলে জুম্মন খুব আস্তে দুটি লাইন বলতে পারলেন, ‘নিজের পে’টে নিজেই চা’ক্কু ঢু’কাইছি। নি’জের ও’পর জি’দ আমার।’ তাঁর চোখের কোণ বেয়ে পানি গড়িয়ে পড়ল।

মা, তিনভাই ও স্ত্রীকে নিয়ে জুম্মন নারায়ণগঞ্জে থাকেন। পরিবারের সদস্যরা বলেন, ক’রোনায় পোশাক কারখানার কাজ হা’রিয়ে কয়েক মাস ধরে অটোরিকশা চালাচ্ছেন জুম্মন। কোনোরকমে সংসারটা চলছিল। এদিকে স’ন্তানসম্ভবা স্ত্রী’র প্র’সবের দিন ঘনিয়ে আসছে। হা’সপাতা’লে নিতে টাকা জমাতে হবে।

জুম্মন সোমবারও সকাল আটটার দিকে বেরিয়েছিলেন। এর মধ্যেই দুপুর ১২টার দিকে পরিবারের লো’কজন জানতে পারেন জুম্মন র”ক্তে ভা’সছেন। পুলিশ তাঁকে নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হা’সপাতা’লের দিকে যাচ্ছে।

ঢাকা মে’ডিকে’লের জ’রুরি বিভাগের বাইরে দাঁড়িয়ে জুম্মনের ভাই মো. মানিক বলছিলেন এসব কথা। বি’রতিহীনভাবে কাঁ’দতে থাকা মা জরিনা বেগম ছে’লের সঙ্গে কথা বলতে পা’রেননি। ঘুরেফিরে তিনি একই প্রশ্ন করছিলেন, ‘আমার ছে’লেটা বাঁ’চব তো?’

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, সোমবার বেলা সাড়ে ১০টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জ থেকে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাসহ জুম্মনকে আ’টক করেন ট্রাফিক পুলিশের উ’পসহকারী প’রিদর্শক (এটিএসআই) রাশেদুল ইসলাম। স্থানীয়ভাবে জায়গাটি ডাচ্‌–বাংলা ব্যাংক ইউটার্ন নামে পরিচিত। রাশেদ চ’ড়-থা’প্পড় দিয়ে জুম্মনের কাছ থেকে আড়াই হাজার টাকা রেকার বিল দা’বি করেন। ক্ষো’ভে-হ’তাশায় অটোচালক জুম্মন ধা’রা’লো ছু”রি নি’জের পে’টে ঢু’কিয়ে দেন।

অবশ্য এটিএসআই রাশেদ মুঠোফোনে প্রথম আলোর কাছে দা’বি করেন, জুম্মনের অটোরিকশাটি আ’ট’ক করা হ’য়নি এবং তাঁর কাছে রেকারিংয়ের বিলও চাওয়া হ’য়নি।

তিনি বলেন, জুম্মনের মায়ের ভাষ্য অনুযায়ী তিনি (জুম্মন) মা’দকাস’ক্ত। সং’সারে অ’ভাব–অ’নটনের কারণে তিনি নিজেই ছু’রিকাঘা’ত করে আত্মহ’’..র চে’ষ্টা করেছেন।

ঘটনার পর সোমবার বিকেলে শিমরাইলের সাজেদা হাসপাতা’লের পেছনে খালি জায়গায় জুম্মনের ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা পড়ে থাকতে দেখা যায়। পাশেই ছিল ট্রাফিক পুলিশের রেকার (নওগাঁ-ই-৬১-০০০৩)। ঘটনাস্থলে থাকা রেকারচালক মামুন মিয়া বলেন, ‘অটোরিকশা ধরার পর এটিএসআই রাশেদ স্যার ওইটা অস্থায়ী ড্যাম্পিংয়ে নিয়ে আসেন।’।

তিনি আরও বলেন, ব্যাটারচালিত অটোরিকশা আ’ট’ক করলে রেকার বিল দেড় হাজার টাকা আদায় করা হয়। মহাসড়কে অ’বৈধ তিন চাকার যানবাহন চলাচলের সংখ্যা বেশি বেড়ে গেলে ট্রাফিক পুলিশ ধ’রে নিয়ে রেকার বিল আদায় করে।

স্থানীয় এক ব্যবসায়ী জানান, ডাচ্‌–বাংলা ব্যাংক ইউটার্ন এলাকায় অ’বৈধভাবে মহাসড়কে উঠলে এবং নানা কারণে আশপাশ থেকে প্রতিদিন ৩০ থেকে ৪০টি ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা আ’ট’ক করা হয়।

জুম্মনকে প্রথমে শিমরাইলের সুগন্ধা হাসপাতা’লে নেওয়া হয়। সেখানকার চি’কিৎসা কর্মকর্তা মো. ইয়াসিন আরাফাত বলেন, ট্রাফিক পুলিশের দুই সদস্যই জুম্মনকে চি’কিৎসার জন্য নিয়ে যান। এদিকে ঢাকা মে’ডিকেল কলেজ হা’সপাতা’লের জ’রুরি বি’ভাগের চি’কিৎসকেরা জানান, জুম্মনের শা’রীরিক অ’বস্থা নিয়ে তখন পর্যন্ত কিছু বলার উপায় ছিল না।