এলাকায় গান-বাজনা নি’ষিদ্ধ করে সমা’লোচ’নার মুখে ইউপি সদস্য

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : ফেব্রুয়ারী 4, 2021 03:26:55 অপরাহ্ন
0
19
ভিউ

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের তিন নম্বর ওয়ার্ড এলাকায় গান-বাজনা স’ম্পূর্ণ নি’ষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহাজালাল বাদল। তার এই সিদ্ধা’ন্তে সমর্থন জানিয়েছেন ওই ওয়ার্ডের পঞ্চায়েত ও মসজিদ কমি’টির নেতারা। তবে কাউন্সিলরের এমন সিদ্ধান্তের তীব্র নি’ন্দা জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃ’তিক জোট। কাউন্সিলর শাহাজালাল বাদল সাবেক ছাত্রলী’গ নেতা ও আলোচিত সাত খু’ন মা’মলার প্রধান আ’সামি নূর ‘হোসেনের বড় ভাই’য়ের ছেলে। গান-বাজ’না নি’ষিদ্ধের বি’ষয়ে সামাজিক যোগা’যোগমাধ্যমে একটি ভি’ডিও ছ’ড়িয়ে পড়েছে।

ভিডিওতে দেখা যায়, ‘সদর উপজে’লার সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের তিন নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহাজালাল বাদলের অনুমতিতে একজন ব্যক্তি বলছেন, সিটি কর’পোরেশনের কাউন্সিলর অফিস থেকে মসজিদ ও পঞ্চা’য়েত কমিটি বরাবর চিঠি দেওয়া হবে। আগামী শুক্রবার জুমার নামা’জের বয়ানে যাতে বলে দেওয়া হয়, শনিবার থেকে গান-বাজ’না সম্পূ’র্ণ নি’ষিদ্ধ। সেই চিঠির রেফারেন্স নিয়ে প্রতিটি বাড়িওয়া’লাকে আপনারা বলে দেবেন।’

গান-বাজনা স’ম্পূর্ণ নি’ষেধ জানিয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহাজালাল বাদল বলেন, ৯টি পঞ্চায়েত কমিটি ও ৩৫টি মস’জিদ কমিটি আমাদের এই সিদ্ধা’ন্তের স’মর্থন জানিয়েছেন। এ বি’ষয় নিয়ে আমি থানার ওসির সঙ্গে আলাপ করব। সামা’জিক ও ভালো কাজের জন্য যেখানে এলাকার পঞ্চায়েত কমিটির সমর্থন আছে সেখানে অবশ্যই প্রশা’সনও সহযোগিতা করবে বলে আমার বিশ্বাস।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদ বলেন, ‘যে সংস্কৃতিই হোক। সেটা মানুষের আচার-আচরণের ও’পর পরিবর্ত’নশীল। চা’পিয়ে দেওয়ার কোনো বি’ষয় নয়। যখনই চা’পিয়ে দেওয়ার কোনো ব্যাপার থাকে বা চেষ্টা করা হয়, তখনই বুঝতে হবে তাদের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত কিংবা রাজ’নৈতিক ফয়দা হা’সিলের ব্যাপার রয়েছে। চা’পিয়ে দেওয়া ব্যাপার শেষ পর্যন্ত টিকে না। গান-বাজনা সম্পূর্ণ নি’ষিদ্ধের ব্যাপারে তীব্র নি’ন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, রাতের বেলায় উচ্চশব্দে ডি’জে পার্টি করার ব্যা’পারটি আলাদা।

কাউন্সিলর বাদলের সমালোচনা করে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদ প্রশ্ন তুলে বলেন, গান-বাজনা সম্পূর্ণ নি’ষিদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা কে তাকে দিলেছেন? প্রশ্ন তুলেছেন নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের অন্যান্য নেতাকর্মীরা। প্রয়োজনে আলোচনার মাধ্যমে জোটের পক্ষ থেকে প্রদক্ষেপ নেওয়ারও সিদ্ধান্ত হতে পারে। এ ব্যাপারে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান বলেন, কাউন্সিলর এ ব্যাপারে আমার সঙ্গে কোনো আলাপ-আলোচনা করেন নাই।

আমি বিভিন্ন সংবাদকর্মীদের মাধ্যমে জেনেছি। স’রকার কোথাও সংস্কৃতির কাজ বন্ধ বা নি’ষিদ্ধ করে নাই। তিনি বন্ধ করার কে? মশিউর রহমান আরও বলেন, গান-বাজনা নি’ষিদ্ধ করার ক্ষমতা স’রকারের নীতিনির্ধারক ও প্রশাসনের। বন্ধ করার ব্যাপারে একজন কাউন্সিলরের কতটুকু এখতিয়ার রয়েছে সে বি’ষয়ে আইনি বি’ষয়গুলো খতিয়ে দেখে আমরা ব্যবস্থা নেব। সুত্রঃ সময়