নারী ইউপি সদস্যকে জুটাপেটা করলেন চেয়ারম্যান!

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : ফেব্রুয়ারী 4, 2021 03:24:29 অপরাহ্ন
0
27
ভিউ

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জে’লার নবীনগরের কাইতলা উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম আসলাম মৃধার বি’রুদ্ধে দু’র্নীতি, মা’দকসেবন, ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণসহ নানা অনিয়মের অ’ভিযোগ এনে তার অপসারণ ও অনাস্থা জানিয়েছেন ইউপি সদস্যরা।বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব মিলনায়তনে পরিষদের ১২ জন সদস্যের মধ্যে ১১ সদস্য উপস্থিত হয়ে তার অপসারণের দাবি জানান।

সংবাদ সম্মেলনে ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডের মধ্যে ৮টি ওয়ার্ডের পুরুষ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী ওয়ার্ডের তিন নারী ইউপি সদস্য উপস্থিত ছিলেন।উপস্থিত ইউপি সদস্যরা হলেন- মো. অলিউল্লাহ, ২নং ওয়ার্ডের বাছির মোল্লা, জহিরুল ইসলাম, ফোরকান আহমেদ, জাহাঙ্গীর আলম, মোহাম্ম’দ লিটন, কামাল মিয়া, লিলি বেগম, আম্বিয়া বেগম ও দোলেনা বেগম। ২নং ওয়ার্ড সদস্য বাছির মিয়া বলেন, ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এম আসলাম মৃধার নিজে মা’দকাসক্ত ও মা’দক বেচাকেনা করেন।

এ ছাড়া তিনি টিআর কাবিখার টাকা আ’ত্মসাৎ করেন। জন্ম-মৃ’ত্যু সনদ প্রদানেও তিনি অতিরিক্ত টাকা নেন। ৯নং ওয়ার্ড মেম্বার ও তিন নারী মেম্বার চেয়ারম্যানকে এসব বি’ষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি লিলি বেগম নামের এক নারী মেম্বারকে জুতাপেটা করেন। পরিষদের টাকা আ’ত্মসাৎসহ বিভিন্ন অনিয়মের বি’রুদ্ধে আমরা জে’লা প্রশাসকের বরাবর অ’ভিযোগ জানিয়েছি। এ ছাড়া আমরা সব ইউপি সদস্য সভা করে অর্থ আ’ত্মসাৎ ও অশালীন কাজের বি’রুদ্ধে অপসারণ এবং অনাস্থা প্রদানের রেজুলেশন করেছি।

সংবাদ সম্মেলনে নারী ইউপি সদস্য লিলি বেগম বলেন, চেয়ারম্যানকে আমাদের বরাদ্দের বি’ষয়ে যখন জিজ্ঞাস করেছিলাম, তখন তিনি আমাকে জুতাপেটা করেন। এ সময় আমার সঙ্গে ২নং ওয়ার্ড সদস্য ছিলেন। আমি তার অপসারণ দাবি করছি। সুত্রঃ সময়