উপায় নাই, নৌকায় চড়তেই হবে : খালেদা জিয়াকে প্রধানমন্ত্রী

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : ফেব্রুয়ারী 2, 2021 03:56:43 অপরাহ্ন
0
215
ভিউ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপির নেতৃত্ব শূন্যতার প্রতি ইঙ্গিত করে আওয়ামী লীগের সমর্থন বৃ’দ্ধি হবার প্রসঙ্গ টেনে বলেছেন, যার প্রতিফলন স্থানীয় স’রকার নির্বাচনগুলোতে দেখা গেছে। বিএনপির আজকে সেই দশা। তারা যত বক্তৃতা দিক আর যত কথাই বলুক না কেন তাদের নেতৃত্বের অভাব রয়েছে। সাজাপ্রাপ্ত প’লাতক আ’সামি যখন একটা দলের নেতা তখন তাদের ও’পর মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস কিছুই থাকে না।আজ মঙ্গলবার জাতীয় সং’সদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ও’পর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনা ও একাদশ জাতীয় সং’সদের একাদশ অধিবেশনের সমাপনী ভাষণে সং’সদ নেতা একথা বলেন।

নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু নির্মাণের প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপির চেয়ারপারসনকে উদ্দেশ্য করে বলেন, সেতুতে না উঠে নৌপথে যেতে হলে নৌকাতেই উঠতে হবে। নিজস্ব অর্থায়নে স’রকার পদ্মা সেতু করেছে, প্রশংসা তো করলই না, খালেদা জিয়া বলেছিলেন, জোড়াতালির পদ্মা সেতুতে কেউ উঠবেন না। সেতুতে না উঠে নৌপথে যেতে হলে নৌকাতেই উঠতে হবে। প্রধানমন্ত্রী হাস্যরস করে বলেন, উপায় নাই, নৌকায়ই চড়তে হবে।

আমাদের নৌকা অনেক বড়। সবাইকে নেব। কিন্তু বেছে নেব। কেউ যেন নৌকা ফুটো করতে না পারে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, মানুষ আওয়ামী লীগের কাছ থেকে যেহেতু সেবা পেয়েছে, দেশের উন্নয়ন হচ্ছে, দেশের মানুষের কল্যাণ হচ্ছে কাজেই স্বাভাবিকভাবেই দেশের মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস আওয়ামী লীগ অর্জন করেছে। যার প্রতিফলনা আমরা দেখলাম আমাদের স্থানীয় স’রকার নির্বাচনগুলোতে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, পদ্মা সেতু নির্মাণ নিয়ে অনেক কথা, আমাদের দুর্ভাগ্য ও হাসি পায় যে, যাদের গায়ে দু’র্নীতির ছাপ, যারা ক্ষমতায় থাকাকালে বাংলাদেশ ৫ বার দু’র্নীতিকে বিশ্ব চ্যম্পিয়ন হয়েছে সময়, এতিমের অর্থ আত্মস্যাতের দায়ে যাদের নেতাকে কারাবরণ করতে হয়, ১০ ট্রাক অ’স্ত্র পা’চারের মা’মলা রয়েছে যাদের বি’রুদ্ধে, ২১ আগস্ট গ্রে’নেড হা’মলা করে বি’রোধী দলের নেতাকে হ’’ত্যার প্রচেষ্টার মা’মলায় যারা সাজাপ্রাপ্ত তারা যদি জনগনের নেতৃত্বে থাকে তবে সেই দল জনগণের কাজ করবে কীভাবে।

মানুষ এখন আন্তরিকভাবে ভোট দিচ্ছে। এখন ইভিএম’র মাধ্যমে ভোট হচ্ছে যেখানে কারচুপি করার কোন সুযোগ নাই। যার যার ভোট সে নিজে দিতে পারে। অতীতের নির্বাচনকালীন প্রহসনের প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ১০টা হোন্ডা ২০টা গুন্ডা নির্বাচন ঠান্ডা’-সেদিন আর এখন নেই বা ভোট বন্ধ থাকলেও একজনকে নির্বাচিত ঘোষণা করা হলো- সেদিনও নেই। হ্যাঁ, মেয়র নির্বাচনে কমিশনারদের মধ্যে কখনো কখনো গোলমাল হয়, সেটা আলাদা।

অতীতের নির্বাচনগুলো কেমন ছিল সেই প্রশ্ন উত্থাপন করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘যাদের গায়ে হাজারো কাদার ছিটা তারা আবার বড় কথা বলে কোন মুখে? সেটাই আমার প্রশ্ন। তিনি বলেন, আজকাল অনেক কথা এবং অনেক সমালোচনা শুনি, অনেক প্রশ্ন বিএনপি নেতারা করেন। হ্যাঁ প্রশ্ন করেন, সমালোচনা করেন কিন্তু জানিনা তারা আয়নায় নিজেদের চেহারাটা ভালভাবে দেখেন কি না। খালেদা জিয়ার প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, মেকআপের জন্য চেহারা আয়নায় দেখলেও নিজেদের কাজটাকে তারা দেখেন না। সুত্রঃ কালের কণ্ঠ