অগ্রিম ভাড়া না দেয়ায় ঘ’রে তা’লা, মা’রা গেল ৬ মাসের শি’শু

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : জানুয়ারী 13, 2021 10:21:11 অপরাহ্ন
0
54
ভিউ

অগ্রিম ঘরভাড়া দিতে পারেননি কাঠমিস্ত্রি ইম’দাদুল ইসলাম। তাতেই ক্ষি’প্ত হয়েছেন বাড়িওয়ালা। বাড়িভাড়া না দেয়ার কারণে ছয় মাসের শি’শুকন্যাসহ তার স্ত্রী’কে পাঁচ দিন ঘরে তা’লাবদ্ধ করে রাখেন। ঘর তা’লাবদ্ধ অবস্থায় বালতির পা’নিতে ডু’বে মা’রা যায় শি’শু আজিজা তাসমিয়া।

গত সোমবার (১১ জানুয়ারি) খুলনা ম’হানগরীর হরিণটানা রিয়াবাজার এলাকায় বাড়িওয়ালা মো. নওশেরের বাড়িতে শি’শুটির ম’র্মান্তিক মৃ’ত্যু হয়।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি) শি’শুটির বাবা-মা নওশেরকে দায়ী করে থানায় অ’ভিযোগ দিতে যান। তবে পুলিশ অ’ভিযোগ না নিয়ে অ’পমৃ’ত্যুর মা’মলা দা’য়ের করেছে বলে অ’ভিযোগ দ’ম্পতির। পরে তারা আ’দালতে এসে আইনজীবীদের কাছে অ’ভিযোগ দেন।

অ’ভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ২০২০ সালের ডিসেম্বর মাসে কাঠের ডিজাইন মিস্ত্রি ইম’দাদুল ইসলাম ও তার স্ত্রী তামান্না মাসে চার হাজার টাকা চুক্তিতে রিয়াবাজার এলাকায় একতলা বাড়িটির দুই কক্ষ ভাড়া নেন। জানুয়ারি মাসের অগ্রিম ভাড়া দিতে পা’রেননি তারা। ফলে ৬ জানুয়ারি থেকে ঘরে শি’শু স’ন্তানসহ তামান্নাকে তা’লাবদ্ধ করে রাখেন বাড়িওয়ালা নওশের। এসময় তামান্নার স্বা’মী মোংলা ঝিউধরা এলাকায় কাঠের কাজ করছিলেন।

কাঠমিস্ত্রি ও ভাড়াটিয়া ইম’দাদুল ইসলাম বলেন, ‘আমি নিম্নআয়ের মা’নুষ। আয়-রোজগার কম। সং’সারে অ’ভাব-অ’নটন থাকলেও স’ন্তানকে জী’বন দিয়ে ভা’লোবাসতাম। কিন্তু বাড়িওয়ালার নি’ম’র্মতায় আজ সেই স’ন্তানকে হা’রাতে হলো।’

ইম’দাদুলের স্ত্রী তামান্না ইসলাম জানান, তা’লাবদ্ধ অবস্থায় গত সোমবার (১১ জানুয়ারি) দুপুরে শি’শুটি হঠাৎ খেলতে গিয়ে বালতির পানির মধ্যে উ’ল্টে যায়। ঘরে এসে তিনি শি’শুটিকে ওই অবস্থা থেকে উ’দ্ধার করলেও বাইরে থেকে ঘর তা’লাবদ্ধ থাকায় চি’কিৎসকের কাছে নিতে পা’রেননি।

তিনি বলেন, আমার মতো এভাবে আর কোনো মা’য়ের বু’ক যেন খালি না হয়। আর কোনো পা’ষ’ণ্ড বাড়িওয়ালা যেন এভাবে অন্যায় করতে না পারে। তিনি বাড়িওয়ালার বি’চার দা’বি করেন।

স্থানীয় জলমা ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য (মেম্বার) শহিদুল ইসলাম লিটন জানান, শি’শুটির মা জানালা দিয়ে চি’ৎকার দিলে আশপাশের লো’কজন তা’লা ভে’ঙে তাদেরকে উ’দ্ধার করেন। পরে হা’সপাতালে নেয়ার পথে শি’শুটি মা’রা যায়। এ ঘটনায় এলাকায় ক্ষো’ভ তৈরি হয়েছে।

আইনজীবী অ্যাডভোকেট মোমিনুল ইসলাম জানান, অ’সহায় বা’বা-মা থানায় লিখিত অ’ভিযোগ দিলেও পুলিশ মা’মলা নে’য়নি। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার আ’দালতে অ’ভিযোগ দা’য়ের করা হবে।

লবণচরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সমীর কুমার সরদার বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে আমরা অ’পমৃ’ত্যু মা’মলা নিয়েছি। বি’ষয়টি ত’দন্তাধীন রয়েছে। ত’দন্তে ঘটনার সত্যতা প্রমাণিত হলে এটা মা’মলায় রূপান্তরিত হবে।