না’রীবাদী লে’খিকার মে’য়েকে নিয়ে যে কু’রুচিপূর্ণ স্ট্যা’টাস ভাইরাল

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : জানুয়ারী 12, 2021 11:49:15 পূর্বাহ্ন
0
20
ভিউ

অনলাইন ডেস্কঃ সাম্যবা’দী ও নারীবা’দী লেখিকা হিসেবে পরিচিত অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী ইভানা শামসের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেয়া কুরুচিপূর্ণ একটি পোস্ট ভাইরাল হয়েছে। অবাধ ও লাগামহীন যৌ’নাচারের পক্ষে তার দেয়া এই স্ট্যাটাসের ব্যাপক প্র’তিবাদ জানিয়েছেন নেটিজেনরা। পোস্টটি দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ক্ষো’ভ ও প্র’তিবাদের ঝড় ওঠে।

রোববার নিজের মেয়ের সাথে তোলা ছবি শেয়ার করে কুরুচিপূর্ণ ওই পোস্টটি দেন ইভানা শামস। বি”কৃত ও জাহেলিপূর্ণ মনমা’নসিকতায় পরিপূর্ণ স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো- “আমার মেয়ে (14) বিয়ের আগে সে’ক্স করলে আমি ক’ষ্ট পাবো না। তবে ১৮ হওয়ার আগে করলে ক’ষ্ট পাবো। আঠেরোর পর আমি চাইবো শুধুমাত্র/একমাত্র ভালোবাসার মানুষের সাথে সে’ক্স করুক, এবং এঞ্জয় করুক অ্যাক্টিভ পার্টিসিপেন্ট হিসাবে এবং দুজনে লয়াল থাকুক (যদিও ডিসিশন তার, আমি শুধু অ্যাডভাইস দিতে পারি)।

এভাবে, আলটিমেটলি হাসব্যান্ড হওয়ার মতো কাউকে না পাওয়া পর্যন্ত সে যদি আরও ছেলে ট্রাই করে, কোনো অসুবিধা নাই। ভু’ল মানুষের সাথে থাকার চেয়ে, কিছু ট্রাই করে পছন্দের মানুষ পাওয়া জরুরি। যে ছেলে ইনট্যাক্ট হাইমেন খুঁজে সেই ছোটলোক আমার মেয়ের স্বামী হওয়ার যোগ্য না। আমার চোখে এটাই ন্যায়, এটাই মানবিক, এটাই সৎ চরিত্র, এটাই স্রষ্টার তৈরী শরীরের প্রতি সম্মান…”

স্ট্যাটাসটিতে ২০ ঘণ্টায় ২৭ হাজার রিয়্যাকশন এসেছে। এতে হাহা প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ১৮৭০০জন। ক্ষু’ব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ৪৪৫৪ জন এবং লাভ পড়েছে মাত্র ২০৪৫টি। স্ট্যাটাসটি শেয়ার হয়েছে ৪৩০০ বার।

ইভানা শামসের স্ট্যাটাস নিয়ে ফাতিমা রুমি লিখেছেন, ‘‘আমি যদি ইভানা শামস আপু টাইপ উদারমনা, আল্ট্রা মডার্ণ মম হই এবং আমার যদি আপুর মতো ১৪ বছর বয়সী একটা মেয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আর ৪/৫ বছর পরই নানী হয়ে যাবার সমূহ সম্ভাবনা আমার। কিন্তু আফসোস আমার নাতি বা নাতনির কোন নির্দিষ্ট পিতা থাকবে না। পিতা খুঁজতে হলে আমাকে DNA টেস্ট টাইপ ঝামেলায় যেতে হবে, তখন আমাকে প্রচুর দৌড়াদৌড়ি করতে হবে এবং সেইসাথে মেয়ের ১৮ বছর হয়ে গেলে আমার মেয়ের পিছনে লেখাপড়া, এবং অন্যান্য খরচ এর পাশাপাশি কনডম বা জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল কেনা বাবদ প্রচুর খরচা করতে হবে,তার উপর ঘন ঘন অ্যাবরসান করার মতো বাড়তি ঝামেলার ভ’য় তো আছেই।

সুন্দরভাবে, ঝুঁ’কিমুক্তভাবে মেয়ে যেন সে’ক্স লাইফ এনজয় করতে পারে তার জন্য আবার ভালো সে’ক্স টিচার রাখা। ব্যাপক খরচা’পাতির ব্যাপার। ব্যাপক চিন্তায় পড়ে গেলাম আপু। এইডস হবার টেনশনটা না হয় বাদই দিলাম, সেই চিন্তা মাথায় নিলে তো আমার সব চুল পেঁকেই যাবে। একে তো অল্প বয়সে নানি হবো তার উপর অল্প বয়সে যদি সব চুল পাঁকিয়ে ফেলি তাহলে তো আমার নিজের সে’ক্স লাইফই গোল্লায় যাবে, আমার সে’ক্স পার্টনাররা আমাকে বুড়ি বলে দৌড়ে পালাবে। চিন্তায় পড়ে গেলুম আপু।’’

চহুতি আরাবি শাহিদা লিখেছেন, ‘‘স্রষ্টার তৈরি শরীরের প্রতি সম্মান জানানোর জন্য প্রথমে যেটা করতে হবে সেটা হলো হেলথি খেতে হবে, এক্সারসাইজ করতে হবে এবং রুটিনসম্মত জীবন যাপন করতে হবে। আর মেডিকেল সাইন্সের পুরো সুবিধা নিতে হলে নিয়মিত ডাক্তারের কাছে যেয়ে ফুল চেকাপ করতে হবে। স্রষ্টার তৈরী শরীরের প্রতি সম্মানের জন্য এক বা একাধিক ব্যাক্তির সাথে সে’ক্স করতে হবে এইটা প্রথম শুনলাম এবং এতো বোকার মতন কথা উন্নত দেশে বসবাসরত কোনো মানুষের মুখে এর আগে কখনো শুনিনাই।…’’