মা’নুষের ভিতরে কেন এত যৌ’ন কা’ম: এসপি আবিদা

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : জানুয়ারী 11, 2021 09:36:42 পূর্বাহ্ন
0
680
ভিউ

রাজধানীর কলাবাগানে ইংলিশ মিডিয়াম স্কু’লের শি’ক্ষার্থী আনুশকা ধ.. ও হ… ঘটনায় চারদিকে প্র’তিবাদের ঝ’ড় বয়ে যাচ্ছে। স’হপাঠীকে হা’রিয়ে শো’কে কাতর ধানমন্ডির মাস্টারমাইন্ড স্কুলের শি’ক্ষার্থীরা। এ ধ”। ও ম’র্মা’ন্তিক হ’’। না’ড়া দিয়েছে স’মাজের বি’বে’ককে। যে যার জায়গা থেকে প্র’তিবাদ জানাচ্ছেন।

তেমনিভাবে ধ”.. প্র’তিবাদ জানিয়ে ফে’সবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন লালমনিরহাটের পু’লিশ সু’পার (এস’পি) আবিদা সুলতানা।

রোববার (১০ জানুয়ারি) দেওয়া আবিদা সুলতানার ফেসবুক স্ট্যাটাসটি সময় সংবাদের পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো:

রাতে একজন মা’য়ের অনুভূতি কেমন হয়, যদি আদরের স’ন্তা’নকে অন্যের লা” ল’সার ব’লি হ‌তে দেখতে হয়!! মা’নুষের ভিতরে কেন এমন প’ শু র প্র’বৃত্তি? কেন এত যৌ’ ‘ন কা ‘ম? এর শেষ কোথায়?

পঞ্চান্ন/ষাট বছরের প্রবীণ,‌ হাড্ডী ক’ঙ্কা’লসার পনের ষো’ল বছরের প্র ‘তিব’ন্ধীকে তখন ধ.. করে তখন তাকে কী বলা যায়? ??
আবার এমন আ’চ’রণের জন‌ অ’নু’শোচনার লে’শমাত্র নেই। বক্তব্য.. আমার ভা’তিজিকে আমি তো একটু আ’দর করতেই পারি!!!!
আহ্ !!! কী আ’জব!!

মা’য়ের চো’খের অ’ঝোর শ্রা’বণ আমাকে আ’হত’ করে!! কী করব?? কয়জন মা’কে স্ব’স্তি দিতে পারি আমরা?

কী ছে’লে, কী মে’য়ে .. কখন কীভাবে কার লা’ ল’সার শি’ কার হবে বোঝা কি সম্ভব?

র’ ক্তা’ক্ত ছোট্ট ছে”লেটিকে দেখে কী মা প্রথমে বুঝতে পে’রেছিলেন যে তার‌‌ই সহপাঠী বড় ক্লাসের ছে’লে’টির শি’কার হতে হবে তার স’ন্তা’নকে এমন করে??

এমন অ’সুস্থতা কেন মা’ নুষের মধ্যে?? এই অ’সভ্যতার শেষ কী করে হবে?

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সকালে বন্ধু দিহানের মোবাইল কল পেয়ে বাসা থেকে বের হন রাজধানীর ধানমন্ডির মাস্টারমাইন্ড স্কু’লের ‘ও’ লেভেলের ‘শি’ক্ষার্থী আনুশকা নূর আমিন। এরপর কি’শো’রীকে কলাবাগানের ডলফিন গ’লির নিজের বাসায় নিয়ে যান দিহান। ফাঁকা বাসায় তাকে ধ”. করা হয়। অ’সুস্থ হয়ে পড়লে দিহানসহ চার ব’ন্ধু তাকে ধানমন্ডির আনোয়ার খান মর্ডান মে’ডিকেল কলেজ হা’সপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে ক’র্তব্য’রত চি”কিৎসক ছা’ত্রী’কে মৃ ‘ত ঘো’ ষণা করেন। ধ”ণের পর অ’তিরিক্ত র’ক্ত ‘ক্ষ’রণে তার মৃ’’ত্যু হয় বলে জানান চি’কিৎসকরা। এ ঘটনার মা’ম’লায় দিহান গ্রে’ফ তার রয়েছেন। তিনি ১৬৪ ধারায় আ’দালতে জ’বানব’ন্দিও দিয়েছেন।

এ ঘটনায় আনুশকার বা’বা বা’দী হয়ে মা’মলা করেছেন। মা’মলার এ’জাহারে উল্লেখ করা হয়, গত বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সকালে আমার স্ত্রী ও আমি বের হয় হই। পরে আমার মে’য়ে বেলা সাড়ে ১১টায় তার মাকে ফোন দিয়ে বলে সে কোচিংয়ের পে’পার্স আনতে বাইরে যাচ্ছে।

দুপুর ১টা ১৮ মিনিটে দিহান আমার স্ত্রী’কে ফোন দিয়ে বলে আমার মে’য়ে তার বাসায় গিয়েছিল। সেখানে হঠাৎ অ’চেতন হয়ে প’ড়ায় তাকে রাজধানীর আনোয়ার খান ম’ডার্ন মে’ডিকেল কলেজ হা’সপাতলের জ’রুরি বি’ভাগে ভ’র্তি করেছে। এ কথা শুনে আমার স্ত্রী দুপুর ১টা ৫২ মিনিটের দিকে হা’স’পাতালে পৌঁছায়। সেখানে গিয়ে ক’র্তব্যরত চি’কিৎসকের কাছে জানতে পারেন আমাদের মে’য়েকে ধ”. করে মে ‘রে ফে ‘লা হয়েছে।