স’রকারি খালে বাঁধ দিয়ে জমি বানালেন আওয়ামী নেতা!

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : জানুয়ারী 9, 2021 05:20:19 অপরাহ্ন
0
20
ভিউ

গাজীপুরের শ্রীপুরে চেংটির খালে বাঁধ দিয়ে জমিতে রূপান্তর করার অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে হান্নান ভূইয়া নামের এক আওয়ামী লীগ নেতার বি’রুদ্ধে। অ’ভিযুক্ত ব্যক্তি মাওনা ইউনিয়ন পরিষদের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক সদস্য ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা। এই দ’খলযজ্ঞের ফলে অস্তিত্ব সং’কটে পড়েছে স’রকারি এই খালটি। স্থানীয়দের ভাষ্যমতে, উপজে’লার মাওনা ও গাজীপুর ইউনিয়নের চারগ্রামের মধ্যদিয়ে প্রবাহিত এই খাল দীর্ঘদিন ধরেই এলাকাগুলোর অর্থনৈতিক গুরুত্ববহন করে আসছে।

সালদহ নদী থেকে উৎপত্তি হয়ে লবলঙ্গ খালে সংযুক্ত হওয়া এই খালটির দৈর্ঘ্য প্রায় ছয় কিলোমিটার। স্থানীয় কৃষকদের দ’খলের ফলে বেশ কয়েকবছর ধরেই খালটির পানি প্রবাহে নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই গাজীপুর-আক্তাপাড়া সড়কের চেংটিখালের ও’পর নির্মিত সেতুর পশ্চিম পাশে খালের গতিপথ বন্ধ করে স’রকারি খালকে জমিতে রুপান্তর করেছেন অ’ভিযুক্ত হান্নান ভূইয়া। খালের প্রবাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বর্তমানে অস্তিত্ব সং’কটে পড়েছে স’রকারি এই খালটি।

নীজমাওনা গ্রামের কৃষক মফিজউদ্দিন বলেন, ‘উপজে’লার অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ এই চেংটির খাল। এই খালকে কেন্দ্র করেই আক্তাপাড়া, নীজমাওনা ও গাজীপুর গ্রামের কৃষি অর্থনীতি পরিচালিত হতো। কিন্তু যেভাবে বাঁধ তৈরি করে খালের গতিপথ বন্ধ করা হয়েছে এতে অস্তিত্বই থাকবে না এই খালের।’ তিনি আরও বলেন, খালে বাঁধ তৈরি করার আগেই দুপাশের পানির প্রবাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই খালে পানি প্রবাহ না হলে কৃষকদের অপূরণীয় ক্ষ’তি হয়ে যাবে। অন্তত কৃষকদের বাঁচাতে এই খালটি রক্ষার দাবি তার।

আক্তাপাড়া গ্রামের যুবক আলী নূর জানান, নানাভাবে ক্ষ’তিগ্রস্ত এই খালটিতে সারা বছরেই পানি প্রবাহ হতো। চলতি বছরও ভালো মাছ পাওয়া গিয়েছিল। স্থানীয় কৃষকদের কৃষিকাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার পাশাপাশি দেশীয় মাছের উৎস ছিল এই খাল। বর্তমানে খালের প্রবাহ বন্ধ করে দেওয়ায় স্থানীয় হাজারো মানুষের ক্ষ’তির কারণ হবে। গাজীপুর গ্রামের ব্যবসায়ী ফারুক আহমেদ বলেন, ‘এ খালের কারণেই এলাকার অতিবৃষ্টির পানি দ্রুত খালে নেমে যেত, জলাবদ্ধতার কবল মুক্ত ছিল খালের আশপাশের কয়েকটি গ্রাম। খালের প্রবাহ বন্ধ করে দেওয়ায় এখনতো জলাবদ্ধতার আ’শঙ্কা তৈরি হয়েছে।’

মাওনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম খোকন বলেন, ‘প্রাচীনতম এই খালটি এলাকার জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এলাকার মানুষের সাথে খালকে বাঁচাতে হবে।’ এই খালের প্রবাহ বন্ধের সাথে জ’ড়িতদের বি’রুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি খালটিতে বাঁচাতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ দাবি করেন তিনি। এ বি’ষয়ে অ’ভিযুক্ত হান্নান ভূইয়া জানান, এ জমিটি তার। খালের গতিপথ পরিবর্তন হওয়ায় তিনি এই খালে বাঁধ তৈরি করে তার জমিটি উ’দ্ধার করেছেন।

শ্রীপুর উপজে’লা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফারজানা নাসরিন বলেন, ‘স’রকারি খালের গতিপ্রকৃতি বা প্রবাহ বন্ধ করার কোনো সুযোগ নেই। এখন পর্যন্ত এ বি’ষয়ে তাকে কেউ এখনো অবহিত করেননি। তবে তিনি খোঁজ নিয়ে এ বি’ষয়ে ব্যবস্থা নেবেন।’ সুত্রঃ আমাদের সময়