রাজধানীর ডলফিন গলি থেকে গোপালপুরের ক’বরস্থান

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : জানুয়ারী 9, 2021 02:20:50 অপরাহ্ন
0
75
ভিউ

গেলো সাত জানুয়ারি দুপুর। রাজধানীর ৬৩/৪, লেক সার্কাস ডলফিন গলিটির মা’নুষের জী’বন-যা’পন অন্যান্য দিনের মতোই স্বাভাবিক ছিলো। কিন্তু কেউ কি জানতো এই গলিরই একটি বাসায় ঘটে চলছে বী’ভৎস এক ঘটনা? কলাবাগান ইংলিশ মিডিয়াম মাস্টারমাইন্ড স্কুলের ‘ও’ লেভেল (১০) শ্রেণির ছা’ত্রী আনুশকাহ নূর আমিনকে পরীক্ষার সাজেশন্স দেয়ার কথা বলে ডে’কে নিয়ে গেছেন তার ব’ন্ধু ফারদিন ইফতেখার দিহান। সেখানেই দিহানের বি”কৃত যৌ’ন লা’ল’সার শি’কার হয়ে অ’সুস্থ হয়ে প’ড়েন আনুশকা।

তারপর ধ”ণের শি’কার ওই ছা’ত্রীকে আনোয়ার মর্ডান হা’সপাতালে নিয়ে গেলে ক’র্তব্যরত চি’কিৎসক তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন। আর সেখান থেকেই দিনহান ও তার ব’ন্ধুরা আনুশকার মা’কে ফোন দিয়ে প্রথমে বলে, আনুসকা সে’ন্সলেস হয়ে পড়েছে। তাকে আনোয়ার মর্ডান হা’সপাতালে নিয়ে আসা হয়েছে। বাসা থেকে সুস্থ মে’য়ে বেড়িয়ে গিয়ে কিভাবে অ’সুস্থ হয়ে পড়লো; তা ভাবতে ভাবতে আনোয়ার মর্ডান হা’সপাতালের দিকে রওয়ানা দেন আনুশকাহ নূরের মা। রাস্তায় থাকতে থাকতে আরেকটি ফোন আসে। ‘আন্টি ও মা”রা গেছে’। হা’সপাতালে পৌঁছে আনুশকার মা দেখেন প্র’চণ্ড র’ক্তক্ষ’রণে তার মে’য়ে মা”রা গেছে। এরপরই জি’জ্ঞাসাবাদের জন্য ইফতেখার দিহানসহ চারজনকে আ’টক করেছে পু’লিশ।

মা’মলা

আনুশকাহ নূরের মৃ’ত্যুর ঘটনায় বৃহস্পতিবার রাতেই দিহানকে একমাত্র আ’সামি করে কলাবাগান থানায় মা’মলা করেন তার বা’বা। মা’মলার পরপরেই জি’জ্ঞা’সাবাদের জন্য আ’টক দিহানকে গ্রে’প্তার দেখানো হয়। এরপর গতকাল শুক্রবার কলা কলাবাগান থানার পরিদর্শক (ত’দন্ত) আ ফ ম আসাদুজ্জামান গণমাধ্যমকে জানান, ফারদিন ইফতেখার দিহান নামের এক ত’রুণকে আ’সামি করে গেলো বৃহস্পতিবার দিনগত রাত দেড়টার দিকে মা’মলা করেছেন ওই ছা’ত্রীর বা’বা।

দিহানের ধ”ণের কথা স্বী’কার

ঘটনার দিন বৃহস্পতিবার রাতে নিউমার্কেট জোনের সহকারী পুলিশ ক’মিশনার আবুল হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, মে’য়েটির শ’রীরে আ’ঘাতের কোনও চি’হ্ন পা’ইনি। প্রাথমিক জ্ঞিা’সাবাদে আ’সামি দিহান জানিয়েছেন, তিনি আনুশকাহকে ধ”ণ করেছেন। সে সময় দিনহান পু’লিশকে একথাও জানিয়েছেছিল, আনুশকার স’ঙ্গে তার প্রে’মের স’ম্পর্ক ছিলো।

র’ক্তক্ষরণে মৃ’ত্যুর কারণ খুঁজতে আলামত সংগ্রহ

আনুশকাহ নূর আমিনকে ধ”ণের পর হ’’ত্যার ঘটনায় আলামত সংগ্রহ করে সি’আইডি।গতকাল রমনা বিভাগের উপ-ক’মিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, কলাবাগানের এই ম’র্মান্তিক ঘটনায় দিহানের নামে মা’মলা রেকর্ড করা হয়েছে। তাকে রি’মান্ড চেয়ে আ’দালতে পাঠানো হয়েছে। রি’মান্ড নেয়ার পর প্রকৃত তথ্য পাওয়া যাবে। একইসঙ্গে ম’য়নাত’দন্ত হচ্ছে। আমরা সু’রতাল করার সময় সি’আইডির মাধ্যমে তার ভ্যা’জাইনার সোয়াপ রেখেছি। ম’য়নাত’দন্ত থেকে ক্যামিকেল পরীক্ষার জন্য আলামত রাখা হবে। ম’য়নাত’দন্তের প্রতিবেদনের ভিত্তিতেই টোটালি সিদ্ধান্তে আসা যাবে। আসলে কিভাবে মার্ডারটা হয়েছে।

বাসা থেকে আ’লামত জ’ব্দ

নিউমার্কেট অঞ্চেলের জ্যেষ্ঠ সহকারী ক’মিশনার আবুল হাসান বলেন, গেলো বৃহস্পতিবার দিহানকে আ’টক করে থানায় নিয়ে জি’জ্ঞাসাবাদ করা হয়। জি’জ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে সে ছা’ত্রীটিকে ধ”ণের কথা স্বী’কার করেন। দিহানের দা’বি মে’য়েটি তার পূর্ব পরিচিত। বাসার সবাই ঢাকার বাইরে থাকার সুযোগে মে’য়েটিকে ফ্ল্যাটে নিয়ে যান তিনি। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে শা’রীরিক স’ম্পর্ক হয়। এরপরই মে’য়েটি অ’চেতন হয়ে প’ড়লে তিনি তাকে প্রাইভেটকারে করে আনোয়ার খান মডেল মেডিকেল কলেজ হা’সপাতালে নিয়ে যান। প্রাইভেটকারটি জ্বদ করা হয়েছে। তার বাসার যে কক্ষে ঘটনা ঘটেছে, সেখান থেকে আ’লামত জ’ব্দ করা হয়েছে।

আনুশকার ম’য়নাত’দন্ত

আনুশকা নূর আমিনের ম’য়নাত’দন্ত গতকাল শুক্রবার ঢাকা মে’ডিকেল কলেজ হা’সপাতালের ফ’রেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদের নে’তৃত্বে ম’য়নাত’দন্ত স’ম্পন্ন হয়।

ম’য়নাত’দন্ত শেষে ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, ফ’রেনসিক রি’পোর্ট যো’নি ও পা’য়ুপ’থে আ’ঘাত এবং র’ক্তক্ষ’রণের চি’হ্ন দেখা গেছে। তবে ধ’স্তাধ’স্তির কোনো আলামত পাওয়া যা’য়নি।

তিনি আরও বলেন, ডিএনএ প্রোফাইলিংয়ের জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। মৃ’ত্যুর পূর্বে চে’তনানা’শক কিছু খাওয়ানো হয়েছে কিনা, তার জন্য প্রয়োজনীয় নমুনা সংগ্রহ করে কেমিক্যাল পরীক্ষায় পাঠানো হয়েছে। এসব রিপোর্ট পাওয়ার পর মৃ’ত্যুর প্রকৃত কারণ বলা যাবে।

ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, ধ”ণের আলামত পাওয়া গেছে। ধ”ণের ফলে যৌ’ন ও পা’য়ু পথে অ’তিরিক্ত র’ক্তক্ষ’রণ হয়েছে। কিন্তু ধ”ণের আগে আনুশকা নূরকে চে’তনানা’শক কিছু খা’ওয়ানো হয়েছিল কিনা সেটি কেমিক্যাল রিপোর্ট পাওয়ার পরেই জানা যাবে।

এর আগে বয়স নির্ধারনের জন্য ওই ছা’ত্রীর ম’রদে’হের এক্স-রেসহ প্রয়োজনীয় আলামত সংগ্রহ করা হয়। পরে স্ব’জনরা তার ম’রদে’হ নিয়ে যান।

বয়স নিয়ে স’মস্যা:

মা’মলায় ও পু’লিশের সু’রতহাল প্রতিবেদনে আনুশকাহর বয়সের গরমিল থাকায় ম’য়নাত’দন্ত নিয়ে স্কু’লছা’ত্রীর স্বজ’নেরা ভো’গান্তির শি’কার হন। ছা’ত্রীর মা’মা বলেন, মা’ম’লায় তার ভাগনির বয়স লেখা হলেও সু’রতহাল প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে ১৯ বছর। আর যে কারণে ম’য়নাত’দন্তের দে’রি হয়। এ নিয়ে তারা দিনভর ভো’গান্তিতে পড়েন। ফ’রেনসিক মে’ডিসিন বিভাগ থেকে ছা’ত্রীর বয়স নির্ধারণ এক্স-রে করা হয়। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজের ফ’রেনসিক মেডিসিন বিভাগ থেকে কলাবাগান থানার পুলিশকে ডে’কে এনে সু’রতহাল প্রতিবেদনের বয়স ঠিক করা হয়। এরপর ম’রদে’হের ম’য়নাত’দন্ত শুরু হয়। ম’য়নাত’দন্ত শেষে আনুশকার লা’শ সন্ধ্যার দিকে কুষ্টিয়ায় দা’ফনের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়।

জ’বানব’ন্দি শেষে কা’রাগারে দিহান

আনুশকাহকে ধ”ণের পর হ’’ত্যা মা’মলায় গ্রে’প্তার তানভীর ইফতেখার দিহান আ’দালতে দো’ষ স্বী’কার করে জ’বানব’ন্দি দেন। পরে তাকে কা’রাগারে পাঠানো হয়েছে। তার আগে ঢাকার না’রী ও শি’শু নি’র্যাতন দ’মন ট্রাই’ব্যুনালের ম্যা’জিস্ট্রেট গতকাল শুক্রবার দিহানের স্বী’কারো’ক্তিমূলক জ’বানব’ন্দি রেকর্ড করেছেন।

পুলিশ ও পা’রিবারিক সূত্রে জানা গেছে, গেলো বৃহস্পতিবার রাতে কলাবাগান থানায় আনুশকাহর বাবার করা মা’মলায় শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে দিহানকে ঢাকার না’রী ও শি’শু নি’র্যা’তন দ’মন ট্রা’ইব্যুনালে নেয় পুলিশ। আ’সামি দিহানকে আ’দালতে হা’জির করে ১০ দিনের রি’মান্ড আবেদন করেন মা’মলার ত’দন্ত কর্মকর্তা কলাবাগান থানার পরিদর্শক (ত’দন্ত) আসাদুজ্জামান। কিন্তু দিহান দোষ স্বী’কার করে জ’বানব’ন্দী দিতে রাজি হওয়ায় আর তাকে রি’মান্ডে না দিয়ে কা’রাগারে পাঠান আ’দালত। পুলিশ জানিয়েছে, ওই স্কু’লছা’ত্রীর মৃ’ত্যুর ঘটনায় আ’টক বাকি তিনজনকে জি’জ্ঞা’সাবাদ করা হচ্ছে। মে’য়েটির ম’রদে’হ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হা’সপাতালের ম’র্গে রাখা রয়েছে।

চি’রনিদ্রায় শা’য়িত আনুশকা

আনুশকাহ নূর আমিনকে কুষ্টিয়ায় গ্রামের বাড়িতে দাদা-দাদির ক’বরের পাশে কবর দেওয়া হয়েছে। আজ শনিবার সকালে কুষ্টিয়া ‘সদর উপজে’লার কমলাপুরের গোপালপুর কবরস্থানে তাকে দা’ফন করা হয়। এর আগে সকাল ৭টা ৫ মিনিটের সময় গোপালপুর ঈদগা মাঠে তার নামাজের জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শুক্রবার দিনগত রাত ১টার দিকে আনুশকার ম’রদেহ’ ঢাকা থেকে নিজ বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। ভোর থেকেই শত শত মানুষ তাকে শেষবার দেখতে ভিড় করেন। নিকট আত্মীয় স্ব’জনরা কা’ন্নায় ভে’ঙে পড়েন। বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন বাবা আল আমিন আহম্মেদ। পুরো এলাকায় শো’কের ছায়া নেমে আসে।

বি’চার চেয়ে এলাকাবাসী মা’নববন্ধন

আনুশকার দাফন শেষে তাৎক্ষণিকভাবে হ’’ত্যাকারীর দ্রুত দৃ’ষ্টান্তমূলক শা’স্তি ফাঁ’সির দা’বিতে মা’নবব’ন্ধন করেন স্থা’নীয়রা।

কমলাপুর বাজারে সড়কের দুই পাশে দাঁড়িয়ে শত শত মা’নুষ এই মা’নবব’ন্ধনে অংশ নেন। মা’নব’ন্ধনে স্কু’লছা’ত্রীর বাবা আল আমিন আহম্মেদ, ছোটভাই নিভানসহ আত্মীয় স্ব’জনরাও উপস্থিত ছিলেন।

সবাই এই হ’’ত্যার দ্রুত দৃ’ষ্টান্তমূলক শা’স্তি দা’বি করেন। এমন ঘটনা যেন আর কারও সঙ্গে না ঘটে সেজন্য প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন তারা।

বাবা আল আমিন আহম্মেদ বলেন, দ্রুত আ’সামির দৃ’ষ্টান্তমূলক শা’স্তি দা’বি করছি। আর কেউ জ’ড়িত থাকলে তাকে খুঁজে বের করতে হবে।

এছাড়াও মা’মলায় ও সু’রতহাল রি’পোর্টে আনুশকার বয়স দুই বছর বাড়ানো হয়েছে দা’বি করে এর প্র’তিবাদও জানান তারা। আনুশকার আত্মীয় অ্যাডভোকেট সাজ্জাদ হোসেন সে’না বলেন, মা’মলায় এই বয়স প্রভাব ফেলবে। তাই এই বি’ষয়টি দ্রুত স’মাধানের দা’বি করেন তিনি।