ধানের ন্যায্য মূল্য চাওয়া ১৪ শিক্ষার্থীকে শাস্তি দেওয়ার পক্ষে উপাচার্য নাসিরউদ্দিন!

স্বাধীন নিউজ ২৪.কম
প্রকাশ : জুন ৪, ২০১৯ ০৩:৩২:২৫ পূর্বাহ্ন
0
380
views

বশেমুরবিপ্রবি: ধানের ন্যায্য মূল্যের দাবিতে আন্দোলন করায় গোপালগঞ্জস্থ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) ১৪ জন শিক্ষার্থীকে কারণ দর্শানোর নোটিস দেওয়ার পর থেকেই আলোচনা- সমালোচনার ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। এমন কি সোমবার ‘প্রথম আলো’ পত্রিকায় ‘কারণ দর্শানোর নোটিস প্রত্যাহার করুণ: বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়’ নামে সম্পাদকীয় আসে।

স্ক্রিনশট: শিক্ষার্থীর স্টাটাস ও উপাচার্যের ব্যক্তিগত মতামত।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শেখ মেহেদী হাসান প্রান্তের দেওয়া এক ফেসবুক স্টাটাসে কমেন্ট করেন উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন। তারপর আবারো নতুন করে আবারও তিনি সমালোচনায় আসেন। উক্ত স্টাটাসে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নুরুর দালাল কিংবা ছাত্র ইউনিয়নের সদস্যদের কুলাঙ্গার সহ দেখে নেওয়ার হুমকি দেন ছাত্রলীগের একজন কর্মী হিসাবে।

ওই শিক্ষার্থীর স্টাটাসে ইংরেজি মতামত দেন উপাচার্য। তার লিখা মতামত বাংলায় অনুবাদ করলে যা দাঁড়ায় তা পাঠকদের উদ্দেশ্যে তুলে ধরা হলো:- ‘ধন্যবাদ তোমার উপলব্ধির জন্য, এগুলো ক্যম্পাসের ছাত্র নেতাদের অগোচরে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। কেউ হিরক রাজার সাথে তুলনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভালো/উন্নয়নমূলক কাজগুলোকে নষ্ট কিংবা গদি পুড়াতে পারবে না; অন্তত বঙ্গবন্ধুর পূণ্যময় জন্মভূমিতে তো নয়ই।’

স্ক্রিনশট: শিক্ষার্থী দেওয়া ফেসবুক স্টাটাসে ইংরেজিতে ব্যক্তিগত মতামত দেন উপাচার্য প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন।

উপাচার্যের মতামতের প্রতিউত্তরে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নাজমুল হক শাহীন লিখেছেন:- ‘বাংলাদেশের কোথাও কেউ গদি নিয়ে কথা বলেনি শুধু এই খানে কথা হল। তাদের রাজনৈতিক প্রজ্ঞার অভাব। রাস্তায় না থেকে ধান মারিয়ে আসতেন তা ভাল হত। কিছু করার আগে তাদের ভাবা উচিত ছিল।প্রধান মন্ত্রি কে কথা বলার আগে আর ভাবা উচিত ছিল।’

স্ক্রিনশট: উপাচার্যের মতামতের প্রতিউওর দেন শিক্ষক নাজমুল হক শাহীন।

শিক্ষার্থী মেহেদী হাসান তার ফেসবুক স্টাটাসে লিখেন:-
“গোপালগঞ্জ এর মাটিতে থেকে যারা জননেত্রীকে প্রশ্নবিদ্ধ করার দুঃসাহস দেখিয়েছেন তাদের কঠোর বিচারের আওতায় আনা হবে।
আমরা না বুঝে মানববন্ধন এ অংশ নিয়েছিলাম,আমরা বুঝতে পারিনি আমাদের নিয়ে চক্রান্ত করা হয়েছে ।

স্ক্রিনশট: বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থী শেখ মেহেদী হাসান প্রান্ত’র ফেসবুক স্টাটাস যেখানে উপাচার্য প্রফেসর ড. নাসিরউদ্দিন ব্যক্তিগত মতামত ইংরেজিতে জানান।

তোরা আমাদের আদর্শিক নেত্রী আমাদের অভিভাবক কে নিয়ে কথা বলবি আর আমরা ছাত্রলীগের কর্মীরা চুপ করে দেখব সেটা কখনোই হবে না। অতএব সাধু সাবধান তোদের কঠোর বিচারের আওতায় আনা হবে। মাননীয় ভিসি স্যারের সিদ্ধান্তকে আমি স্বাগত জানাই, নেত্রীর বিরুদ্ধে কথা বলে কেউ পাড় পাবেনা।

ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে আমি অন্ততপক্ষে বিন্দুমাত্র ছাড় দিবো না নুরুর দালাল কিংবা ছাত্র ইউনিয়নের কুলাঙ্গারদের।”

এছাড়াও গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে নির্লজ্জ ও বিশ্ববিদ্যালয়কে কারাগার বললেন লেখক ও সাংবাদিক প্রভাস আমিন। রবিবার ( ২ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তিনি এই প্রতিক্রিয়া জানান।

সোমবার প্রকাশিত ‘প্রথম আলো’ পত্রিকার সম্পাদকীয়’তে:-


স্বাধীন নিউজ ২৪ ডটকম/এস/এস/কে/জি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here